Sports Opinion

অনূর্ধ্ব ১৭ বিশ্বকাপের নতুন সূচি ঘোষণা করে দিল ফিফা, মেয়েদের বিশ্বকাপ ২০২১ হবে ভারতেই

নতুন সূচিতে আগামী বছরের ১৭ ফেব্রুয়ারি শুরু হবে ষোলো দেশের এই প্রতিযোগিতা।

প্রেরনা দত্তঃ করোনা সংক্রমণ বাড়ছে দ্রুত। তাই করোনার জেরে স্থগিত ছিল ফুটবলের ছোট-বড় সব টুর্নামেন্ট। তবে এত কঠিন পরিস্থিতির মধ্যে ক্রীড়াপ্রেমীদের জন্য সুখবর। এবার লকডাউন চলাকালীন স্বাস্থ্যবিধি মেনেই ফের মাঠে ফেরানোর তোড়জোড় শুরু করল ফিফা।ভারতে স্থগিত মেয়েদের অনূর্ধ্ব ১৭ বিশ্বকাপের নতুন সূচি ঘোষণা করে দিল ফিফা। নতুন সূচিতে আগামী বছরের ১৭ ফেব্রুয়ারি শুরু হবে ষোলো দেশের এই প্রতিযোগিতা। ফাইনাল ৭ মার্চ।

ফের মাঠে ফুটবল ফেরানোর উদ্যোগ শুরু ফিফার। প্রথম পর্বে তিনটি টুর্নামেন্টের দিনক্ষণ ঘোষণা করা হল।চলতি বছরের নভেম্বরে ভারতে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল অনূর্ধ্ব-১৭ মহিলাদের ফুটবল বিশ্বকাপ। বিশ্বজুড়ে অতিমারি করোনার তাণ্ডবে সেই টুর্নামেন্ট স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল ফিফা। অনির্দিষ্টকালের জন্য পিছিয়ে দেওয়া হয়েছিল মহিলাদের ফুটবল বিশ্বকাপ। অনূর্ধ্ব ১৭ মহিলা ফুটবল বিশ্বকাপের পাশাপাশি ফিফা মঙ্গলবার আরও জানায়, ২০২১-র ২০ জানুয়ারি থেকে ৬ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে অনূর্ধ্ব-২০ মহিলা ফুটবল বিশ্বকাপ। বিশ্বকাপ ফুটসলের জন্য নতুন সূচিতে ফিফা সময় রেখেছে ২০২১-এর ১২ সেপ্টেম্বর থেকে ৩ অক্টোবর।

যেহেতু বিশ্বকাপ পিছিয়ে গিয়েছে আর বয়সভিত্তিক টুর্নামেন্ট হওয়ায় ফুটবলারদের ছাড়পত্রের জন্য সময়সীমাও বদলে দিল ফিফা। ২০০৩ সালের পয়লা জানুয়ারির পরে এবং ২০০৫ সালের ৩১ ডিসেম্বরের আগে জন্ম তারিখ হতে হবে টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণকারী ফুটবলারদের। তবে টুর্নামেন্টের নাম বদল হবে কিনা সেটা অবশ্য এখনও জানা যায়নি। মেয়েদের এই বিশ্বকাপ এমনিতে হওয়ার কথা ছিল এই বছরের ২ থেকে ২১ নভেম্বর। কিন্তু করোনা আতঙ্ক ছড়ানোর পরে তা বাতিল করে দেওয়া হয়েছিল। ফিফার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে,খেলা তিন মাস পিছিয়ে গেলেও বয়সের মাপকাঠি একই রকম থাকবে।

বিশ্বকাপের সূচি জানিয়ে দিলেও ফিফা কিন্তু তাদের বিবৃতিতে লিখেছে, দিন ঠিক হয়ে গেলেও নিয়মিত নজরদারি চলবে। আসলে ফুটবলের নিয়ামক সংস্থার মাথাব্যথার কারণ, এশিয়া ছাড়া বিশ্বের আর কোনও অঞ্চলেরই যোগ্যতা নির্ণায়ক পর্বের খেলা এখনও শেষ না হওয়াটা। সংগঠক দেশ হিসাবে ভারত ছাড়া এশিয়া থেকে খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছে জাপান এবং উত্তর কোরিয়া। বাকি দেশগুলি মূলপর্বে আসার কথা আফ্রিকা, ইউরোপ, ওসেনিয়া, দক্ষিণ আফ্রিকা, মধ্য ও উত্তর আমেরিকা এবং ক্যারিবিয়ান দ্বীপপুঞ্জ থেকে।

Show More

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: