Weather

অশনি সংকেত! উড়ে গেল পুরীর জগন্নাথ মন্দিরের ধ্বজা,ফণীর পর এবার আমফানেও আসছে বড় বিপর্যয় ?

সোমবার দুপুরে পর পুরীতে খুব জোরে হাওয়াও বইছিল না । ফলে ঘটনা জানাজানি হতেই ভক্তদের মধ্যে চরম আতঙ্কের সৃষ্টি হয় ।

প্রেরনা দত্তঃ করোনা ভাইরাসের আতঙ্কে কাঁপছে গোটা দেশ।আর তাঁর মধ্যে কোনও মারাত্মক বিপর্যয় নিয়ে কি ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় ফণী? এমন আশঙ্কার মূলে রয়েছে একটিই কারণ। এখনও পর্যন্ত আমফান এর দাপট শুরু না হতেই উড়ে চলে গেল পুরী মন্দিরের সেই বিখ্যাত পতাকা! গোটা ঘটনায় অমঙ্গলের ইঙ্গিত পাচ্ছেন অনেকে।

আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাস অনুযায়ী, অতি প্রবল গতিতে ধেয়ে আসছে সুপার সাইক্লোন ‘আমফান’। হাতে আর মাত্র কয়েক ঘণ্টা। আতঙ্কের প্রহর গুণছে ওড়িশা-সহ গোটা বাংলা । তার আগেই উড়ে গেল পুরীর জগন্নাথ মন্দিরের নীলচক্রের উপরে উড়তে থাকা ‘পতিতপবন বানা’ । সোমবার দুপুরের পর হঠাতই মন্দিরের পান্ডারা লক্ষ্য করেন, মন্দিরের মাথায় ধ্বজা নেই । এরপর হইচই পড়ে যায় মন্দির প্রাঙ্গণে ।

বহু পুরনো রীতি। ভক্তদের কাছে পুরী মন্দিরের এই পতাকা অত্যন্ত শুভ বলেই পরিচিত।তাই ফের লাগান হয় ধ্বজা । কারণ ধ্বজা না থাকলে মন্দিরে জগন্নাথ দেবের সেবা হয় না । পুরীর মন্দিরের মাথায় প্রতিদিনই ধ্বজা পরিবর্তন করা হয়। বলা হয় ধ্বজা পরিবার্তন না করলে আগামী ১৮ বছরের জন্য নাকি পুরী মন্দির বন্ধ হয়ে যেতে পারে । আর পুরীর মন্দিরের পতাকা হাওয়ার দিকেই ওড়ে । যদিও আশ্চর্য এই বিষয়ের এখনও কোনও বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা পাওয়া যায়নি । প্রতিদিন মন্দিরের একজন পুরোহিত মন্দির চূড়ায় গিয়ে এই পাতাকা লাগিয়ে আসেন । এই ৪৫ তলা উঁচুতে পতাকা লাগানোর জন্য কোনও নিরাপত্তা প্রয়োজন হয় না পুরোহিতের। এছাড়া এমন নানা কাহিনী রয়েছে এই ধ্বজাকে ঘিরে ।

ঘটনা জানাজানি হতেই ভক্তদের মধ্যে চরম আতঙ্কের সৃষ্টি হয় । অনেকেই দাবি করেন, মন্দিরে ভক্তদের প্রবেশ নিষিদ্ধ করার জেরেই এত বড় দুর্ঘটনা। আবার কেউ কেউ বলেন, এ এক অশনি সংকেত । কারণ, সোমবার দুপুরে পর পুরীতে নাকি খুব জোরে হাওয়া বইছিল না ।

আগে ফণীর সময় ১২ হাতের বিরাট আকারের সেই পতাকাই মন্দির চূড়ায় উড়ত। কিন্তু ফণী আসার পূর্বাভাস আসতেই প্রশাসনের নির্দেশে সেই পতাকার মাপ ১২ থেকে কমিয়ে ৫ হাত অর্থাৎ ১২ ফুট করা হয়। তাঁর পরও ঝোড়ো হাওয়ার দাপটে সেই পতাকা উড়ে যায়। যা অত্যন্ত অশুভ লক্ষণ বলেই মনে করছিলেন সকলে।

এদিকে, আমফানের জন্য ইতিমধ্যেই ওড়িশার বিভিন্ন জেলায় সতর্কতা জারি করা হয়েছে । পুরীতেও সতর্কতা জারি করা হয়েছে । তার আগেই এমন ঘটনায় আতঙ্কিত রাজ্যের বাসিন্দারা । তাঁর মধ্যে হঠাত্‍ ধ্বজা কী করে উড়ে গেল , তা নিয়ে কোন ব্যাখ্যা খুঁজে পাচ্ছেন না অনেকেই। আমফান আসার ঠিক আগে পুরীর মন্দিরের এই ঘটনায় বড় কোন দুর্যোগ আসছে বলে আশঙ্কা পান্ডা এবং সেবায়েতদের ।

Show More

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: