Big Story

আশঙ্খা চিটফান্ডের ছায়া : ডাকঘরে টাকা নেই। টাকা গেল কোথায় ? আমানত কারীরা বিক্ষভে

সবটাই ঘোষণা : বাস্তবে জীবনের মূলধন ফেরাচ্ছে না ডাক ঘর : এবার বনগাঁ

নিজের সঞ্চয় দ্রুত দ্বিগুণ হোক এটা সকলেই চায় ৷ আর বিনিয়োগের সবচেয়ে সরল মাধ্যম হিসেবে ব্যাঙ্ককেই বেছে নেয় সাধারণ মানুষ ৷ কিন্তু জানেন কি ব্যাঙ্কের থেকেও আরেক নির্ভরযোগ্য সরকারি প্রতিষ্ঠান আছে যেখানে মিলবে স্বল্প সময়ে জমা টাকার দ্বিগুণ ৷ এমনই কিছু স্কিম নিয়ে এসেছে ইন্ডিয়ান পোস্ট ৷ জনসংখ্যার সিংহভাগ মধ্যবিত্তকে ভারতীয় ডাকঘরের এরকমই বেশ কিছু স্কিমের টাকা জমার পরামর্শ দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। কিন্তু বাস্তবের এর সাথে অনেকটাই আলাদা।

এগুলো সবই ভালো দিক এটা দেখে নিন তবে বনগাঁর অবস্তাহ দেখলে এই প্রচার গুলো শুধু প্রচারেই রইলো।
১) বর্তমানে NSC স্কিমে বছরে ৮ শতাংশ হারে সুদ মেলে ৷ ৮ শতাংশ সুদের হিসেবে আপনি যদি এক লাখ টাকা NSC স্কিমে বিনিয়োগ করেন তাহলে ৯ বছরে তা দ্বিগুণ হয়ে যাবে ৷ ঠিক এই একই পরিমাণ টাকা যদি আপনি SBI-এর মতো বড় ব্যাঙ্কের ফিক্সড ডিপোজিট স্কিমে বিনিয়োগ করেন তাহলে তা দ্বিগুণ হতে ১০.৫ বছর সময় লাগবে ৷
২) যেকোনও প্রাপ্তবয়স্ক ভারতীয় নাগরিক নিজের নামে বা নিজের সন্তানের নামে এই ন্যাশনাল সেভিংস সার্টিফিকেট কিনতে পারেন ৷ ১০০, ৫০০, ১০০০, ৫০০০, ১০,০০০ টাকা মূল্যের সার্টিফিকেট পাওয়া যায় ৷ তবে এক ব্যক্তি একাধিক সার্টিফিকেট কিনতে পারেন ৷ বিনিয়োগের কোনও সীমা নেই ৷
৩) টাকা দ্বিগুণ ছাড়াও NSC স্কিমে বিনিয়োগ করলে ৮০সি ধারায় ট্যাক্সে ১.৫০ লাখ টাকা পর্যন্ত ছাড় মেলে ৷
৪) তবে ন্যাশনাল সেভিংস সার্টিফিকেট স্বল্প সঞ্চয় প্রকল্পের আওতাভুক্ত ৷ সরকার প্রতি তিন মাস অন্তর এই সুদের হার পরিবর্তন করে
৫) দেশের যেকোনও পোস্ট অফিস থেকেই এই NSC স্কিমে বিনিয়োগ করা যেতে পারে ৷ ন্যাশনাল সেভিংস সার্টিফিকেট স্কিমের ন্যূনতম ম্যাচিওরিটির সময় হল পাঁচ বছর ৷

আর বাস্তবের চিত্র কিন্তু সম্পূর্ণ আলাদা , আমরা পোস্ট মাস্টারের কাছে জানতে চাইলে বলেন টাকা নেই। ওপরওয়ালার জানেন করে পেমেন্ট হবে।

দীর্ঘদিন ধরে পোস্ট অফিসে এসেও কোন কাজ না মেটায় ক্ষুব্দ গ্রাহকরা |ঘটনাটি বনগাঁ মুখ্য ডাকঘর এর সোমবার ক্ষুব্দ গ্রাহকেরা ক্ষোভে ফেটে পড়েন পোস্ট অফিসের সামনে। গ্রাহকদের দাবি গত মাসের 26 তারিখের পর থেকে পোস্ট অফিসের কোনো কাজ হচ্ছে না| বারংবার পোস্ট অফিসে এসেও সমস্যা মিটছেনা , সকাল থেকে দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে থাকার পরও মিলছে না পেনশনের টাকা যার ফলে চরম বিপাকে পড়েছেন পেনশন হোল্ডাররা | শুধু তাই নয় গ্রাহকদের দাবি দীর্ঘদিন আগে ম্যাচুরিটি হয়ে গেলেও সেই টাকা তারা পাচ্ছেন না পোস্ট অফিস থেকে৷ এমনকি পোস্ট অফিসের পাশ বই থেকেও টাকা তুলতে পারছেন না সাধারণ মানুষ যার ফলে সমস্যায় পড়েছেন অনেক গ্রাহকেরায়। গ্রাহকদের দাবি এ বিষয়ে পোস্ট মাস্টার কে জানানো হলে তিনি লিংকের অজুহাত দিচ্ছেন৷ এ ব্যাপারে পোষ্ট মাষ্টার বলেন নেট কানেকসান না থাকায় এই সমস্যা হচ্ছে.

Show More

OpinionTimes

Bangla news online portal.

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: