West Bengal

অসহায়দের পাশে রয়েছে সাম্য

মানুষ যাতে কেউ অনাহারে না মরে, সেই কথা ভেবে এক নয়া উদ্যোগ সাম্য পরিবারের

@ দেবশ্রী : চলছে দ্বিতীয় দফার লকডাউন। কিন্তু এই লকডাউনে সমস্যায় পড়েছে অনেকেই। জুটছে না ঠিক করে দুবেলার খাবার। করোনার যেমন ভয় রয়েছে প্রাণে, তেমন আরও একটা ভয় বাঁসা বাঁধছে। এই ভয় অনাহারের। চারিদিকে রেশন চুরির ও অভিযোগ উঠছে, তাতে খাবার পাওয়ার ক্ষেত্রে তৈরী হচ্ছে অনিশ্চয়তা। রুজি রোজগার সব বন্ধ। তাই এই মুহূর্তে সেই সকল অসহায় মানুষদের পাশে এসে দাঁড়াচ্ছে নানান স্বেচ্ছাসেবী সংস্থারা। এর মধ্যেই উঠে এল সাম্যের নাম। এই সাম্য নামক সংস্থাটি মানুষের হাতে তুলে দিচ্ছে কিছু খাবার, ফুটিয়ে তুলছে তাদের মুখে হাসি। এগিয়ে দিচ্ছে সাহায্যের হাত।

সকল রকম নিয়ম মেনেই মানুষদের হাতে খাবার তুলে দিচ্ছে এরা। যেহেতু সোশ্যাল ডিস্ট্যানসিং খুব গুরুত্বপূর্ণ তাই মাত্র ৪ জন মিলেই এগিয়ে গিয়ে দিল খাবার। তবে তাদেরকে সাহায্যের জন্য হাত বাড়িয়ে দিয়েছে অনেকেই। বেশিরভাগ ফান্ডিংটাই হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ার ফেসবুকের মাধ্যমে। সব বন্ধুরা মিলেই গড়ে উঠেছে এই সংগঠন। তারা নিজেদের প্রচেষ্টায় যতটা সম্ভব এগিয়ে দিচ্ছে সাহায্যের হাত। আজ তারা কেওড়াতলা শ্মশান মোড়ের, সাহা নগর লালাইব্রেরির ধনকল বস্তিতে বিতরণ করে খাবার। আজকে সেখানে খাবার দিতে উপস্থিত ছিলেন, সায়নদীপ দাস, শৈবাল দাসগুপ্ত, এলিজা ব্যানার্জী এবং রিক্সা কাকু সঞ্জীব বাবু।

এই নিয়ে ২ বার তাঁরা খাবার তুলে দিলেন দুস্থদের হাতে, যাঁদের এই মুহূর্তে খাবারের প্রয়োজন খুব। গত ২০ শে এপ্রিল থেকে তাঁরা এই সুন্দর উদ্যোগ টি নিয়ে কাজে নেমেছে। দু দিন তাঁরা কাঁচা মাল দিয়েছে। আজকের খাদ্য বিতরণীতে তাঁরা মোট ৩০ টি প্যাকেট এর কাঁচা মাল দ্রব্য মানুষকে দিয়েছেন। প্রতিটি প্যাকেটে ছিল, ২ কেজি করে চাল, ১ কেজি করে আলু, হাফ কেজি করে পেঁয়াজ, ৩০০ গ্রাম ডাল, মুড়ি ১ প্যাকেট, সোয়াবিন ১ প্যাকেট ও তেল ৩০০ ml করে।

সাম্য জানাচ্ছে তাঁরা আগামী দিনে আরও অনেকের হাতে তুলে দিতে চায় খাবার। তবে এর জন্য অবশ্যই দরকার বাকিদের ও সাহায্যের হাত। তাহলেই আরও অনেক এগিয়ে যেতে পারবে তাঁরা। তাই সাম্যকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিতে চাইলে যোগাযোগ করুন আমাদের ওপিনিয়ন টাইমস এর সাথে। আমরা আপনাকে পৌঁছে দেব সময়ের কাছে। ওপিনিয়ন টাইমস এর তরফ থেকে এত সুন্দর একটি উদ্যোগের জন্য সাম্যকে জানাচ্ছে অনেক সাধুবাদ। আশা করা হচ্ছে যেন আরও এগিয়ে যায় এই সাম্য। আরও বড় হয় সাম্য-র পরিবার।

Show More

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: