Big Story

আগের দিন আর নেই : অভিষেক বুঝছেন , তাই মারমূখী তৃণমূল যুব !

সৌম্য লড়াইয়ের অন্য মুখ

গত ২রা মে খা খা রোডের মধ্যে মেটিয়া বুরুজ অঞ্চলে একটি মিছিল বেরিয়েছিল কংগ্রেস প্রার্থী সৌম্য আইচ রায়ের সমর্থনে প্রায় তিন হাজার । যত দিন যাচ্ছে বিপক্ষের পাল্লা ভারী হচ্ছে , ভাবা যায় নি যেখানে কংগ্রেসের কোনো সংঘটন না থাকা সত্বেও এতো লোক হলো কেন ? ওপিনিয়ন টাইমস এর চার জনের সমীক্ষক দল আজ ওই অঞ্চলে একটি সার্ভে করলো , পাঁচ টি প্রশ্ন নিয়ে
১) এখানে দাদা কংগ্রেস অফিস আছে কি ?
স্থানীয় : হা দাদা আছে কিন্তু খোলে না , ভোটের সময় খোলা আছে।
২) সংঘটন নেই তাও এতো বড় মিছিল , কারা করলো ?
স্থানীয় : দাদা আর সহ্য করতে পারছি না , এতো তোলা বাজী , এতো পুলিশের অত্যাচার। দিদির কথা অভিষেক শোনে না – মানে না। তাই সব চুপে চুপে আছি পুরোনো দলে ফিরছি। আগে সি পি এম ছিল আমরা শান্তিতে ছিলাম। বললে শুনতো। কংগ্রেস এ ছিলাম তৃণমূল এ গেলাম আবারো ফিরছি !
৩) মিছিলে হাঁটলেন সমস্যা হবে না ?
স্থানীয় : আরে দাদা তৃণমূল টা আমরা বানিয়েছি এখানে , সি পি আই এমের সাথে লড়াই করে , কোথায় ছিল অভিষেক। ওর পিসি আমাদের এখন আর সন্মান দেয় না, পুলিশ আমাদেরই ধমকায়। ভোট দিতে পারলে বুঝে নেবো।
৪) অভিষেক কে হারানো এতো সহজ ?
স্থানীয় : আমরা লিড দেব সৌম্য কে , ভালোছেলে, ভালো ব্যাবহার , আসল পড়াশুনা আছে , দাদা কথা বললে আমারাও  বুঝি। ডায়মন্ড হারবারে হারবে। সবাই চুপ করে আছে।
৫) রাজ্য সরকার এত কাজ করলো , এতো উপকার করলো – তাও ?
স্থানীয় : দান – দয়া কে চায় দাদা , ৮ বছর বয়েস থেকে দর্জির হেলপার , কখন যে ওস্তাদগার হলাম কে জানে।৭৮ টা ফ্যামিলি চলে আমার কাজ করে। ওই দয়া না হলেও হতো। গার্মেন্টস হাব না কি সব ঘোষণা করেছিল , কোথায় দাদা , দিদি ঘোষণা করে ভালো। আমাদের রাস্তা নেই , কাজের পরিবেশ নেই , গাড়ি পার্কিং এর জায়গা নেই। ইলেক্ট্রিক ঠিক থাকে নেই। জুলুম অনেক , কবে বিজেপির সাথে ঝামেলা লাগে। আমরা বালবাচ্চা নিয়ে দাদা বাস করি , ওসব চাই না তাই আর তৃণমূল নয়।অনেক দেখেছি দিদি কে। এবার হবে না। নাম নেবেন না দাদা নাতো ওরা সমস্যা করবে , ওদের লোক সবাই কে নজরে রাখছে। মিডিয়ার সাথে কথা বলা বারণ। ওকে দাদা ভোটার পর দেখা হবে – ওসমান ভাই দাদাদের চা দিয়ো না লস্যি দাও খুব গরম।

(ওপিনিয়ন টাইমস এর সমীক্ষা যারা করলেন তারা নিজেদের নাম বা যার সাথে কথা বললেন তাদের নাম দিতে পারলাম না , বড় ক্যামেরা নিয়ে যাওয়া যাচ্ছে না , গাড়িতে সংবাদ মাধ্যমের লোগো রাখলে সকলের সাথে কথা বলা যাচ্ছে না। ঘিরে ধরছে আর নিয়ে যাচ্ছে ওদের ডেরায় , দলের লোক ছাড়া অনুমতি নেই কথা বলার)।

Show More

Related Articles

Back to top button
Close
Close
%d bloggers like this: