Health

আজ থেকে শুরু চতুর্থ দফার লকডাউন, কোথায় ছাড় কোথায় কড়াকড়ি, রাজ্যের ওপর কি দায়িত্ব ছাড়া হয়েছে, দেখে নিন একনজরে

থুতু ফেলা, গুটখা খাওয়া সহ একগুচ্ছ নিষেধাজ্ঞা

প্রেরনা দত্তঃ সংক্রমণ কমা তো দূরের কথা উল্টে বেড়ে চলেছে দাবানলের গতিতে। সেকারণেই করোনা লকডাউন বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে মোদী সরকার। বৃহস্পতিবার জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণে একেবারে অন্য ধরনের চতুর্থ দফার লকডাউনের কথা বলেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

আজ থেকে শুরু হওয়া লকডাউনের এই চতুর্থ পর্বে কোথায় কোথায় কী কী বিধি নিষেধ জারি থাকছে, কী কী ক্ষেত্রে ছাড় দেওয়া হচ্ছে, তা ওই নির্দেশিকায় জানিয়েছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক। এবার জোন ভাগ রাজ্যের ওপর ছাড়া হয়েছে। রেড, অরেঞ্জ আর গ্রিন জোন চিহ্নিতের কাজ রাজ্যগুলোই করবে। সেক্ষেত্রে মানতে হবে স্বাস্থ্য মন্ত্রকের গাইডলাইন। তৃতীয় দফার লকডাউন অবধি এই জোন চিহ্নিতকরণের কাজ কেন্দ্রের আওতাধীন ছিল।

দেখে নিন আগামী দুই সপ্তাহ কী কী খোলা:
• আন্তঃরাজ্য যাত্রী পরিবহণ। সেক্ষেত্রে দুই রাজ্যের সহমত নিশ্চিত করতে হবে। কেন্দ্র শাসিত অঞ্চলের ক্ষেত্রেও একই নিয়ম লাগু। শুধু কন্টেইনমেন্ট জোনে চলবে না কোনও যাত্রী পরিবহণ।
• স্পোর্টস কমপ্লেক্স আর স্টেডিয়াম খোলা যাবে। কিন্তু প্রবেশ করতে পারবে না দর্শক।
• কন্টেইনমেণ্ট জোনে একমাত্র অত্যাবশকিয় পণ্য মিলবে।
• শুধু মাত্র হোম ডেলিভারি দিতে খোলা যাবে রেস্তোরাঁর রান্নাঘর।
• আন্তঃরাজ্য আর আন্তঃজেলা যাতায়াত করতে পারবেন করোনা যোদ্ধারা। এই পরিসরে ছাড় পাবেন চিকিৎসক,ল নারস-সহ অন্য স্বাস্থ্যকর্মী আর সাফাই কর্মীরা।
• খালি ট্রাক-সহ পণ্যবাহী সব যান চলাচলে শিথিলতা।
• সর্বাধিক ৫০ জন আমন্ত্রিত-সশ বিয়ের অনুষ্ঠান। অবশ্যই মানতে হবে সামাজিক দুরত্ব বিধি।
• শেষকৃত্যে সর্বাধিক ২০ জন জমায়েত করতে পারবেন।
• নির্ঘণ্ট মেনে দোকান খোলা হচ্ছে কিনা, নিশ্চিত করবে জেলা প্রশাসন। দোকানীদের দায়িত্ব নিতে হবে সামাজিক দুরত্ব বিধি যাতে বিকিকিনি হয়, সেটা নিশ্চিত করার। প্রতি গ্রাহকের মধ্যে ৬ ফুট দূরত্ব থাকবে। আর একবারে ৫ জন বেশি গ্রাহক জমায়েত চলবে না।
• যতটা সম্ভব ওয়ার্ক ফ্রম হোম সংস্কৃতি জারি রাখতে হবে। সব প্রতিষ্ঠানকে নির্ঘণ্ট মেপে কাজের সময় নির্ধারিত করতে হবে।

নিষেধাজ্ঞা কীসে?

  • অন্তর্দেশীয় ও আন্তর্জাতিক উভয় বিমান পরিষেবাই চতুর্থ লকডাউনে বন্ধ থাকবে।
  • বন্ধ থাকবে মেট্রো রেল পরিষেবা।
  • স্কুল, কলেজ ও অন্যান্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে চতুর্থ লকডাউনে।
  • বন্ধ থাকবে হোটেল-রেস্তোরাঁ। তবে হোম ডেলিভারির জন্য রেস্তোরাঁর রান্নাঘর খোলা রাখা যাবে।
  • ৩১ মে পর্যন্ত বন্ধ সব সিনেমা হল, শপিং মল, জিমন্যাশিয়াম, স্যুইমিং পুল, বিনোদন পার্ক, থিয়েটার, বার, অডিটোরিয়াম।
  • ক্রীড়াঙ্গন ও স্টেডিয়ামগুলি খোলার নির্দেশ দেওয়া হলেও সেখানে কোনও দর্শককে ঢুকতে দেওয়া হবে না।
  • লকডাউন ফোরে সব সামাজিক, রাজনৈতিক, বিনোদন, শিক্ষামূলক, সাংস্কৃতিক, খেলাধূলা, ধর্মীয় অনুষ্ঠান ও জমায়েতও নিষিদ্ধ।
  • ধর্মস্থান জনগণের জন্য বন্ধ থাকবে।

সরকারের তরফে জানানো হয়েছে, ৬০ বছরের ঊর্দ্ধে এবং ১০ বছরের নিচে বয়স সম্পন্নরা বাইরে যাওয়া উচিত নয়।

Show More

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: