Nation

আজ থেকে শুরু হচ্ছে দু’লক্ষ মানুষকে ফেরাতে ‘বৃহত্তম ইভ্যাকুয়েশন’

তুমুল সমালোচনার ঝড়, এক্ষেত্রেও নাগরিকদের গুনতে হবে বিরাট অঙ্কের ভাড়া

পল্লবী : বিশ্বের নানা প্রান্তে আটকে দেশীয় নাগরিকরা। তাদের উদ্ধার করতে যথেষ্ট তৎপর কেন্দ্র। এবার তাদের ফেরাতেই শুরু হলো এক বিশাল কর্মযজ্ঞ। এই অভিযানের প্রথম ধাপেই প্রায় দু’লক্ষের কাছাকাছি ভারতীয়কে ফেরানোর পরিকল্পনা করা হয়েছে – যেটাকে বলা হচ্ছে বিশ্বের ‘বৃহত্তম ইভ্যাকুয়েশন’। তবে পরিযায়ী শ্রমিকদের মতোই এক্ষেত্রেও গুনতে হবে চড়া হরে ভাড়া।

চলতি করোনাভাইরাস সঙ্কটে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে আটকে পড়া অন্তত তিন লক্ষ ভারতীয় দেশে ফিরে আসার জন্য দূতাবাসগুলোয় আবেদন করেছেন। এদের একটা বড় অংশকে ফিরিয়ে আনতেই ৭ই মে থেকে শুরু হচ্ছে ভারতের মেগা অভিযান। উদ্ধার করা মানুষের সংখ্যা বা অভিযানের ব্যাপ্তি – দু’দিক থেকেই আগের সব রেকর্ড ভেঙে দিতে চলেছে এই অপারেশন। এই বিশেষ ফ্লাইটগুলোর সবই আপাতত চালাবে ভারতের রাষ্ট্রীয় পতাকাবাহী এয়ার ইন্ডিয়া

ভারতের বেসামরিক বিমান পরিবহনমন্ত্রী হরদীপ সিং পুরী জানিয়ে দিয়েছেন, এই বিশেষ ফ্লাইটে ভাড়া দিয়েই টিকিট কিনতে হবে এবং দেশে ফিরেও চোদ্দ দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। যেমন তিনি বলেছেন, “লন্ডন থেকে ভারতে আসার ভাড়া হবে ৫০ হাজার রুপি, আমেরিকা থেকে এক লক্ষ রুপির মতো – কিংবা ঢাকা-দিল্লি বা ঢাকা-শ্রীনগরের ভাড়া হবে বারো হাজার রুপির মতো।” এই সিদ্ধান্তই তুমুল সমালোচনার সৃষ্টি করছে। এরূপ সংকটে এত পরিমান ভাড়া তারা পাবে কোথায় কারণ সঞ্চিত পুঁজি প্রায় সকলেরই শেষের পথে ,অন্যদিকে দেশে ফেরাও আবশ্যক।

ভারতীয় নৌবাহিনীর তিনটি জাহাজ, আইএনএস জলশ্ব, আইএনএস মগর ও আইএনএস শার্দূলকেও এই অভিযানে যুক্ত করা হচ্ছে। এই রণতরীগুলো উভচর অর্থাত্‍ সোজা সমুদ্রতটের বালুতে গিয়েও ভিড়তে পারে – আর এগুলোকে কাজে লাগানো হবে মধ্যপ্রাচ্য ও মালদ্বীপে আটকে পড়া ভারতীয়দের ফিরিয়ে আনতে। দেড় মাসেরও ওপর ভারতের আকাশে আন্তর্জাতিক বিমান চলাচল বন্ধ তারপর সরকারের এই সিদ্ধান্ত বিদেশে আটকে পড়া অনেক ভারতীয়র মুখেই হাসি ফোটাচ্ছে। সিঙ্গাপুর ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ছাত্রী নুপূর প্যাটেল বলছিলেন, “চল্লিশ দিনেরও বেশি অপেক্ষা করার পর অবশেষে হাই কমিশন থেকে এই খবর পেয়ে আমরা স্বস্তির নি:শ্বাস ফেলেছি”,”একটা পরিকল্পনা অবশেষে নেওয়া হয়েছে, আমরা এখন দ্রুত ঘরে ফেরার জন্য প্রার্থনা করছি।”

কিন্তু যে প্রশ্নটি উঠছে তা হলো এত পরিমান মূল্য ছাত্র-ছাত্রীরা পাবে কোথায় ? আমেরিকায় বহু কলেজ-ইউনিভার্সিটি বিদেশি ছাত্রছাত্রীদের ক্যাম্পাস থেকে বের করে দিয়েছে। তারা এয়ার ইন্ডিয়ার বিশেষ ইভ্যাকুয়েশন ফ্লাইটের খবরেও তেমন আশ্বস্ত নন। নর্থ আমেরিকান অ্যাসোসিয়েশন অব ইন্ডিয়ান স্টুডেন্টসের কর্ণধার সুধাংশু কৌশিক জানাচ্ছেন, “এদেশে বহু ছাত্রছাত্রী খোলা গ্যারেজে রাত কাটাচ্ছেন – কারণ তাদের লটবহর সমেত বের করে দেওয়া হয়েছে “,”ভারত বা মার্কিন সরকার কেউই তাদের সাহায্যে এগিয়ে আসেনি। যে স্কলারশিপ বা ছুটকো কাজের ভরসায় তারা খরচ চালাতেন, সেটাও বহুদিন বন্ধ।” “এই অবস্থায় কীভাবে তারা লাখ টাকা প্লেনের ভাড়া দেবেন? আর আমরা যখন কমিউনিটির কাছে সাহায্য চাইতে যাচ্ছি, তখন শুনতে হচ্ছে এরা তো অনেক খরচ করে বিদেশে পড়ে – এদের কেন সাহায্য লাগবে?”

Show More

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: