Nation

আবারও ট্রেন দুর্ঘটনা, জখম ৪০, কার গাফিলতিতে বারবার ঘটছে দুর্ঘটনা ?

সিগন্যালে নিরাপত্তা রক্ষী থাকে না, রেল লাইন এর যথেষ্ট দেখভাল হয় না। যাত্রীদের থেকে মোটা টাকা নিলে নিলেও দেওয়া হচ্ছে না তাদের নিরাপত্তা।

@ দেবশ্রী : আবারও ভয়াবহ ট্রেন দুর্ঘটনা। ওডিশার সালাগাঁও এবং নেরগুণ্ডি স্টেশনের কাছে লাইনচ্যুত লোকমান্য তিলক এক্সপ্রেসের আটটি কামরা। এই দুর্ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে, লাইনচ্যুত আটটি কামরাই। যেখানে নিরাপত্তার কারন দেখিয়ে রেল কর্তৃপক্ষ ক্রমাগত টাকার পরিমান বাড়িয়ে চলেছে, সেখানে তিনি তারা দিতে পারছে না আদতে কোনো নিরাপত্তকা। বারবার হচ্ছে ট্রেন দুর্ঘটনা। এই ঘটনায় জখম ৪০ জন যাত্রীকে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আর তাদের মধ্যে ৬ জনের অবস্থা খুব আশঙ্কাজনক। এইভাবেই হতে থাকছে একের পর এক দুর্ঘটনা, জখম হচ্ছেন যাত্রীরা তাও কোনো বাড়তি পদক্ষেপ নিচ্ছে না রেল কর্তৃপক্ষ।

জানা গেছে মালগাড়ির গার্ডভ্যানের ধাক্কায় লাইনচ্যুত হয়ে যায় এক্সপ্রেস ট্রেনের বগিগুলি। প্রাথমিকভাবে মনে করা হচ্ছে, ঘন কুয়াশার জেরেই এই দুর্ঘটনা ঘটেছে। লাইনচ্যুত বগিগুলি সরানোর কাজ চলছে। বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে ট্রেন চলাচল। কিন্তু কেন হবে এই দুর্ঘটনা ? কুয়াশা না থাকলেও এমন ঘটনার আমরা বহুবার সাক্ষী হয়েছি। যেখানে লাইনচ্যুত হয়েছে কামরা। রেলব্যবস্থা আরও উন্নত করতে বাড়ানো হচ্ছে টিকিটের ভাড়া, নিয়ে আনা হচ্ছে কত নতুন নিয়ম কানুন। কিন্তু কিছুতেই যাত্রীদের নিরাপত্তা ব্যবস্থার দিকে নজর দেওয়ার সময় হচ্ছে না কর্তৃপক্ষের। যার জন্য ভুগতে হচ্ছে সাধারণ মানুষকে।

রেল কর্তৃপক্ষের মতে, বৃহস্পতিবার সকাল সাতটা নাগাদ কটকের কাছে মালগাড়ির গার্ডভ্যানের ধাক্কায় বেলাইন হয় এক্সপ্রেস ট্রেনের কামরাগুলি। মূলত ঘন কুয়াশার কারণে দৃশ্যমানতা শূণ্যে পৌঁছে যাওয়ায় এই ঘটনা ঘটেছে। এদিন সকালে আচমকা এক বিকট শব্দে রেলের নিরাপত্তারক্ষীরা দ্রুত ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন। এমনকী আশপাশের বাসিন্দারাও ছুটে এসে উদ্ধারকার্যে হাত লাগান। দুর্ঘটনায় জখম ৪০ জন যাত্রীকে উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তাঁদের মধ্যে ছয়জনের অবস্থা খুবই আশঙ্কাজনক। এই গোটা দুর্ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে রেল পুলিশ। জখমদের কোনোরকম ক্ষতিপূরণের কথা এখনও ঘোষণা করেনি রেল। জানা গিয়েছে ট্রেনটি মুম্বই থেকে ভুবনেশ্বর যাচ্ছিল। দুর্ঘটনার জেরে এই রুটে সমস্ত ট্রেন চলাচল বিঘ্নিত হচ্ছে।

এখন প্রশ্ন যে হরে টিকিটের দাম বাড়াচ্ছে রেল কর্তৃপক্ষ আদেও কী ততটা সুরক্ষা দিতে পারছে তারা আমাদের ? কোনো রকম নিরাপত্তা ব্যবস্থা বাড়াচ্ছে না তারা। এমন বহু জায়গায় দেখা গেছে যে সিগন্যালে কোনও নিরাপত্তারক্ষী থাকে না। এমনকী লাইনগুলির দেখভালেও ত্রুটি থাকে। যার ফলে বারবার ঘটে রেল দুর্ঘটনা। আর বললে খুব ভুল হবে না, আজকের এই দুর্ঘটনার জন্য রেল কর্তৃপক্ষ অনেকটাই দায়ী। আজ তাদের গাফিলতির কারনে যাত্রীদেরকে ভুগতে হচ্ছে।

Show More

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: