West Bengal

আরও একবার পথ দুর্ঘটনার শিকার হলেন পরিযায়ী শ্রমিকেরা, আহত হলেন বাংলার শ্রমিকেরা

কেন বারবার পথ দুর্ঘটনার কবলে পড়তে হচ্ছে পরিযায়ী শ্রমিকদের ?

@ দেবশ্রী : আর কতবার ঘটবে এই মর্মান্তিক মৃত্যু ? এ কেমন পরিহাস ? আরও একবার দুর্ঘটনার কবলে পরিযায়ী শ্রমিকদের বাস। আহত কমপক্ষে ২০ জন শ্রমিক। দুর্ঘটনাটি ঘটেছে জলপাইগুড়ির ধুপগুড়ি কলেজ সংলগ্ন খোলাইগ্রাম চৌপথি এলাকায়। রবিবার ভোররাতে বাসটি তার নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উলটে যায়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছায় ধুপগুড়ি থানার পুলিশ ও দমকল বাহিনী। তাঁরা আহত শ্রমিকদের উদ্ধার করে। ইতিমধ্যেই ধুপগুড়ি গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে আহতদের।

একটু বেশি উপার্জনের আশায় কোচবিহারের তুফানগঞ্জের বেশ কয়েকজন বিহারের ইটভাটায় কাজ করতেন। আয় একটু বেশি হওয়ায় দিব্যি চলছিল সংসার। কিন্তু আচমকাই লকডাউনে বদলে যায় সবকিছু। কাজ বন্ধ হয়ে যাওয়ায় স্বাভাবিকভাবেই জুটছিল না খাবার। ছিল না হাতে কোনো টাকাও। তাই বাধ্য হয়ে বিহার থেকে কোচবিহারের তুফানগঞ্জে ফিরে আসছিলেন তাঁরা। প্রশাসনিক উদ্যোগে বাসে করে ফিরছিলেন ওই পরিযায়ী শ্রমিকেরা। ওই বাসে ৩৫ জনের মতো যাত্রী ছিলেন। রবিবার তখন ভোররাত। বাসটি জলপাইগুড়ির ধুপগুড়ি কলেজ সংলগ্ন খোলাইগ্রাম চৌপথি এলাকায় আচমকাই তার নিয়ন্ত্রণ হারায়। নয়ানজুলিতে পড়ে যায় বাসটি।

খবর পাওয়া মাত্রই ঘটনাস্থলে পৌঁছয় ধুপগুড়ি থানার পুলিশ ও দমকল বাহিনী। শুরু হয় উদ্ধারকাজ। দুর্ঘটনাগ্রস্ত ওই বাসের ভিতরে থাকা সব যাত্রীরা কমবেশি আঘাত পান। তাঁদের মধ্যে ১৩ জনের চোট ছিল একটু বেশি। তাঁদের দ্রুত ধুপগুড়ি গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। প্রাথমিক চিকিত্‍সার পর ছেড়ে দেওয়া হয়েছে প্রত্যেককে। বর্তমানে ধুপগুড়ি বাস টার্মিনাসে নিয়ে যাওয়া হয় ওই পরিযায়ী শ্রমিকদের।

পরিযায়ী শ্রমিকদের মৃত্যু এবং আহত হওয়ার ঘটনা যেন লেগেই রয়েছে। তা কিছুতেই থামছে না। কখনও হেঁটে আসতে গিয়ে ক্লান্ত হয়ে প্রাণহানি হচ্ছে তাঁদের। আবার কখনও পথ দুর্ঘটনাতে মৃত্যু হচ্ছে পরিযায়ী শ্রমিকদের।

Show More

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: