West Bengal

এতো সঙ্কটের মধ্যে কোথাও থই হারাচ্ছেন নাতো মুখ্যমন্ত্রী !

পরিকল্পনা করে কাজটা করার সুযোগ চাইছেন রাজ্য সরকার

পল্লবী : মুখ্যমন্ত্রী এ দিন বলেন, ”ঝড়ের সঙ্গে লড়ব, নাকি যাঁরা ফিরছেন তাঁদের দেখব! হাজার হাজার করোনা ঢোকালে মানুষ ক্ষমা করবে? পরিকল্পনা করে কাজটা করার সুযোগ সরকারকে দিন। যাঁরা আসবেন, তাঁরা যেন সরকারকে জানিয়ে আসেন। সন্ধ্যা সাতটা থেকে সকাল সাতটার মধ্যে আসবেন না।” মুখ্যমন্ত্রী এ দিন ফের জানিয়েছেন, ট্রেনে করে আটকে থাকা মানুষদের ফেরার খরচ বহন করবে রাজ্যই। তাঁর কথায়, ”কেন্দ্রীয় সরকারে যাঁরা আছেন, বড় বড় ভাষণ দিচ্ছেন, লজ্জা করে না? পরিযায়ী শ্রমিকদের থেকে টাকা নিচ্ছেন! আগে একটা ট্রেন প্রতি সাড়ে সাত লক্ষ টাকা নিতেন, এখন তা ১০ লক্ষ করে দিয়েছেন! যাদের আমরা নিয়ে আসছি, তাদের পুরো ভাড়াটাই আমরা দিয়ে দিচ্ছি।”

এ বার আরও ১২০টি ট্রেনের পরিকল্পনা করা হচ্ছে। আগামী দিন দু’য়েকের মধ্যে তা চূড়ান্ত হবে। সোমবার নবান্নে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, সব মিলিয়ে প্রায় ২৩৫টি ট্রেনে বাইরের রাজ্য থেকে আটকে থাকা যে মানুষেরা আসবেন, তার সব খরচই বহন করবে রাজ্য সরকার। ১০৫টি ট্রেনে করে ১৬টি রাজ্য থেকে আটকে পড়া মানুষ এবং পরিযায়ী শ্রমিকদের আনার পরিকল্পনা আগেই করেছিল রাজ্য সরকার। সরকারের দাবি, ইতিমধ্যেই ট্রেনে এবং বাসে করে আড়াই-তিন লক্ষের মতো মানুষ এসে পৌঁছেছেন। ১৫টি ট্রেনের এক-একটিতে প্রায় ১৮০০ মানুষ ফিরেছেন। মুখ্যমন্ত্রী এ দিন জানান, প্রতিদিন ১০টি করে ট্রেন রাজ্যে এলে ২৫-৩০ হাজার করে মানুষ ফিরতে পারবেন।

চলতি পরিস্থিতি কঠিন হয়ে পড়েছে, একদিকে করোনা তার সাথে পরিযায়ী শ্রমিকদের রাজ্যে ফেরাতে তৎপর হচ্ছে রাজ্য। এর পাশাপাশি রাজ্যের দিকে ধেয়ে আসছে অন্য বড়ো সঙ্কট ‘আম্ফান’ . এই সব কিছুর মধ্যে কোথাও গিয়ে থই হারিয়ে ফেলছে নাতো রাজ্য সরকার ? পশ্চিমবঙ্গের মতো একটা রাজ্যের মানুষ তাকিয়ে তার দিকে এই অবস্থায় চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত তাকেই নিতে হবে।

Show More

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: