Big Story

করোনার হটস্পটে মুসলিমরাই মুখাগ্নি করলেন বাংলাদেশি মৃত হিন্দুদের

নারায়ণগঞ্জ এখন বাংলাদেশের করোনা হটস্পট বলে ভয়াবহ স্থান।

প্রেরনা দত্তঃ সনাতন শাস্ত্রমতে জড়জগতে মানুষ থেকে শুরু করে প্রত্যেকটা জীব পঞ্চভূতের (আকাশ,বাতাস,জল, আগুন ও মাটি) সাহায্যে তৈরি। যখন কোন ব্যক্তি মারা যায় তখন ঐ ব্যক্তিকে ধর্ম শাস্ত্রের নিয়মে পঞ্চভূতে মিশিয়ে দিতে হয়।আর এই করোনা সঙ্কটের সময় ভয়ে আতঙ্কে মৃতদেহ সৎকার করার মত কেউ নেই। নারায়ণগঞ্জ এখন বাংলাদেশের করোনা হটস্পট বলে ভয়াবহ স্থান।

জানা গিয়েছে, নারায়ণগঞ্জের একজন সংখ্যালঘু হিন্দু ব্যবসায়ী তার ছয় বন্ধুকে নিয়ে নিয়ে একটি সাত তলা ভবন তৈরি করেছিলেন। ইচ্ছে ছিল, সবাই কাছাকাছি থাকবেন। ওই ব্যক্তি করোনাভাইরাসের শিকার হলে আবাসনের সবাই তাঁকে এড়িয়ে চলতে থাকেন।

মৃতের পরিবারের অভিযোগ, বারবার সাহায্য চাইলেও কেউ জলটাও এগিয়ে দেননি। এমনই অবস্থায় গুরুতর অসুস্থ ব্যবসায়ীর মৃত্যু হয় আবাসনের সিঁড়িতে। মারা যাওয়ার পর ওই ভবনের সিঁড়িতেই পড়েছিল তার মৃতদেহ ঘণ্টা খানেকেরও বেশি।মৃতের বাড়ির তরফে স্থানীয় সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলর মাকছুদুল আলম খন্দকারের সঙ্গ যোগাযোগ করা হয়। ওই কাউন্সিলরের নেতৃত্বে কয়েকজন স্বেচ্ছাসেবী ওই ব্যক্তির শেষকৃত্য করেন। রীতি মেনে হিন্দু মতেই দাহ সম্পন্ন করেন তাঁরা।

বিবিসি জানাচ্ছে, নারয়ণগঞ্জে সংখ্যালঘু হিন্দুদের মধ্যে যারা করোনায় মারা গিয়েছেন তাঁদের শেষকৃত্য সম্পন্ন করতে এগিয়ে এসেছেন মুসলিমরা। তাঁরাই হিন্দু রীতি মেনে মৃতদেহ শ্মশানে নিয়ে গিয়ে মুখাগ্নি করেছেন।

Show More

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: