Nation

করোনা-যোদ্ধাদের পাশে পুলওয়ামায় শহিদ মেজরের স্ত্রী, হরিয়ানা পুলিশকে দিলেন ১০০০ পিপিই

করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে হরিয়ানা পুলিশের জওয়ানদের জন্য ১০০০ সিকিউরিটি কিট (মাস্ক, গগলস ও গ্লাভস) দিয়েছেন

প্রেরনা দত্তঃ নিজেদের প্রাণের ঝুঁকি নিয়ে দেশকে করোনা মুক্ত করার চেষ্টা করছেন চিকিৎসক-স্বাস্থ্যকর্মীরা। জরুরি পরিষেবা দিয়ে চলেছেন পুলিশও। এবার বিশেষ উদ্যোগ নিয়ে সেই সমস্ত পুলিশ কর্মীদের পাশে দাঁড়ালেন শহিদের স্ত্রী। করোনাভাইরাস মোকাবিলার লড়াইয়ে এগিয়ে এলেন পুলওয়ামায় জঙ্গিহামলায় নিহত মেজর বিভূতি ধাউন্দিয়ালের স্ত্রী নিকিতা কউল ধাউন্দিয়াল। হরিয়ানা পুলিশকে ১০০০ পার্সোনাল প্রোটেকটিভ ইকুইপমেন্ট দান করলেন তিনি।জঙ্গিরা কেড়ে নিয়েছিল স্বামীর প্রাণ। শহিদ মেজর স্বামীর কফিনবন্দি দেহ আর এক বছরের কম সময়ের বিবাহিত জীবনের স্মৃতি আঁকড়েই বেঁচে রয়েছেন নিকিতা ধৌনদিয়াল। পরে স্বামীকে শ্রদ্ধা জানাতে সেনাবাহিনীতে যোগ দেওয়ার পরীক্ষা দেন পুলওয়ামায় নিহত বিভূতি ধৌনদিয়ালের স্ত্রী।

এ বছরই নিকিতা শর্ট সার্ভিস কমিশন (এসএসসি) পরীক্ষা ও সার্ভিসেস সিলেকশন বোর্ড (এসএসবি) ইন্টারভিউতে উত্তীর্ণ হয়েছেন। তিনি চেন্নাইতে অফিসার্স ট্রেনিং অকাদেমিতে যোগ দেবেন।
শহিদের স্ত্রীর প্রশংসা শোনা যায় হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রী মনোহর লাল খট্টরের গলাতেও। টুইটারে তিনি লেখেন, “হরিয়ানা পুলিশকে এক হাজার পিপিই দিয়েছেন নিকিতার স্ত্রী বিভূতি। এই মেজরই দেশের জন্য নিজের জীবনের বলিদান দিয়েছিলেন। আপনার সাহায্যের জন্য অনেক ধন্যবাদ।”

পুলওয়ামায় ২০১৯-এর ১৭ ফেব্রুয়ারি জঙ্গিদের সঙ্গে গুলি বিনিময়ে প্রাণ হারিয়েছিলেন মেজর বিভূতি ধাউন্দিওয়াল। দেহরাদূনের বাসিন্দা বিভূতি সহ চার সেনা জওয়ান জইশ-ই-মহম্মদ জঙ্গিদের সঙ্গে গুলি বিনিময়ে প্রাণ হারিয়েছিলেন। ২০১৯-এর ১৪ ফেব্রুয়ারি আত্মঘাতী জঙ্গি হামলায় ৪০ সিআরপিএফ জওয়ান প্রাণ হারিয়েছিলেন। ওই জায়গা থেকে সামান্য দূরে জইশ জঙ্গিদের সঙ্গে গুলি বিনিময়ে নিহত হয়েছিলেন বিভূতি ধাউন্দিওয়াল।

Show More

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: