West Bengal

করোনা সঙ্কটে বদলি হল স্বাস্থ্য সচিব, ঘোষণা নতুন সচিবের

প্রশাসনের ব্যর্থতা তুলে ধরছে দুই বদলি, কিভাবে হবে করোনার মোকাবিলা ?

@ দেবশ্রী : করোনা পরিস্থিতিতেই ঘটছে স্থান বদল। প্রথমে খাদ্য দফতরে খাদ্য সচিব মনোজ আগারওয়ালকে আর এবারে স্বাস্থ্য দফতরে স্বাস্থ্য সচিব পদ থেকে সরানো হল বিবেক কুমারকে। কোভিড মোকাবিলা পর্বে রেশন ব্যবস্থায় অনিয়ম ও প্রশাসনিক ব্যর্থতার জন্য খাদ্য সচিব পদ থেকে মনোজ আগরওয়ালকে সরিয়ে বাধ্যতামূলক ছুটিতে পাঠানো হয়েছে। এবারে স্বাস্থ্য সচিব বিবেক কুমারকে তাঁর পদ থেকে তাঁকে সরিয়ে এখন, পরিবেশ দফতরের প্রিন্সিপ্যাল সচিবের দায়িত্বে পাঠানো হয়েছে। তাঁর পরিবর্তে নতুন স্বাস্থ্য সচিব করা হচ্ছে নারায়ণ স্বরূপ নিগমকে। তিনি ছিলেন পরিবহণ দফতরের সচিব।

আমলা মহলের অনেকের মতে, বিবেক কুমারকে যে স্বাস্থ্য সচিবের পদ থেকে সরানো অনিবার্য হয়ে উঠছে তার দেওয়াল লিখন আগেই পরিষ্কার হয়ে গিয়েছিল। কারণ, গত ৩০ এপ্রিল কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রকের সচিবকে যে চিঠি বিবেক কুমার পাঠিয়েছিলেন, তাতে বিস্তর গরমিলের একটা ছবি অতিশয় স্বচ্ছ হয়ে ধরা পড়ে। তাতে দেখা যায়, সে দিন পর্যন্ত বাংলায় যতজন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে বলে রাজ্য সরকারের বুলেটিনে বলা হয়েছে, তার তুলনায় আক্রান্তের প্রকৃত সংখ্যা অনেক বেশি।

বিবেক কুমারের সেই চিঠিতে বেমক্কা সত্যি ফাঁস হয়ে গিয়েছে বলে হই হই করে নেমে পড়েন বিরোধী দলরা। সোশ্যাল মিডিয়ায় মুহূর্তের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে সেই চিঠির প্রতিলিপি। তার পর থেকে দু’দিন কোনও বুলেটিনই আর প্রকাশ করেনি নবান্ন। তা দেখে আবার বিরোধীরা বলেন, অঙ্ক মেলানোর চেষ্টা করছে সরকার। সব দিক থেকে অস্বস্তিতে পড়ে সরকার। এরপর রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড় বলতে শুরু করেন, এই সংকটের মধ্যে তথ্য গোপন করা ঠিক নয়। স্বচ্ছতা আনা দরকার স্বচ্ছতা। নইলে বিভ্রান্ত হচ্ছেন মানুষ। তাঁরা প্রকৃত পরিস্থিতির কথা জানতে না পেরে আরও বিপন্ন বোধ করতে পারেন।

পর্যবেক্ষকদের অনেকের মতে, কোভিডের মতো সংকট মোকাবিলা করতে গিয়ে রাজ্যের অন্যতম দুটি দফতরের সচিবকে বদল করতে হল। একটি খাদ্য দফতর, অন্যটি স্বাস্থ্য। এই ঘটনা কিছুটা হলেও কিন্তু প্রশাসনিক ব্যর্থতার ইঙ্গিত বহন করছে। নাহলে কেন হচ্ছে এই বদল ?

Show More

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: