West Bengal

করোনা সন্দেহের জেরে চরম হেনস্থার শিকার এক বৃদ্ধ

হাসপাতাল থেকে ফেরার পরই লাঠি নিয়ে তেড়ে আসে পাড়ার লোক

পল্লবী : করোনার জেরে একেই পৃথিবী হয়ে যাচ্ছে জনশুন্য আর যে মানুষ গুলি এখনো প্রাণে বেঁচে আছেন তারা কি বাঁচার তাগিদে হারিয়ে ফেলছেন তাদের সাধারণ মনুষত্ত্ব টুকু ? এভাবে চলতে থাকলে হয়তো সত্যিই রসাতলে যাবে গোটা বিশ্ব।

তখনও তাঁর দুহাতে স্যালাইনের চ্যানেল, মাথায় সার্জিক্যাল ক্যাপ ও মুখে মাস্ক। ডানহাতটা সামান্য ফুলে আছে। ৭০ বছর বয়সী এক বৃদ্ধ লিভারের অসুখে হাসপাতালে ভর্তি হন। চিকিত্‍সার পর হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছিল তাকে । বাড়ি ফেরার পর তিনি পাড়ায় বেরোন একটু । ওই বৃদ্ধকে এমন অবস্থায় দেখে এলাকার লোকজনের সন্দেহ হয়। করোনা আক্রান্ত হাসপাতাল থেকে পালিয়ে এসেছে বলে চিত্‍কার শুরু হয়। সঙ্গে সঙ্গে ঘটনাস্থলে ভিড় জমে যায়। কেউ কেউ লাঠি নিয়ে তেড়ে আসে। তিনি অক্ষম, পারলেন না পালতে।

এরপর মোটা দড়ি দিয়ে গাছের সঙ্গে তাঁকে বাঁধা হয়। বাসিন্দাদের দাবি নাহলে এলাকায় করোনাভাইরাস ছড়িয়ে। ওই বৃদ্ধকে মারধরও করা হয়েছে বলে অভিযোগ। এই ঘটনার বেশ কিছুক্ষণ পরে এলাকার এক বাসিন্দা আক্রান্তকে চিনতে পারেন। তিনি জানান, মানিকতলার ক্যানাল ইস্টরোডের পাশের পাড়ায় তাঁর বাড়ি, নাম নারায়ণ চৌরাশিয়া। তাঁর প্রতিবেশীরা জানান, একাই থাকেন বৃদ্ধ। বহুদিন হল স্ত্রী ও কন্যারা অন্যত্র থাকেন। লিভারের অসুখে ভুগছেন তিনি। কয়েকদিন আগে অসুস্থ হয়ে পড়লে প্রতিবেশীরা তাঁকে আর জি কর হাসপাতালে ভর্তি করে দেন। এদিন সেখান থেকেই বাড়িতে ফিরেছেন বৃদ্ধ। সঙ্গে স্ত্রীও ছিলেন। তিনি চলে যেতেই পাড়ায় ঘুরতে বেরিয়ে এমন আক্রমণের মুখে পড়লেন।

জানা গিয়েছে, হামলাকারীরে মানিকতলা থানায় খবর দিলে পুলিশ বৃদ্ধকে উদ্ধার করতে চায়নি। বরং লালবাজারে খবর দিয়ে অ্যাম্বুল্যান্স আনানোর ব্যবস্থা হয়। তবে বৃদ্ধের পরিচয় জানা যেতেই পুলিশ সেখান থেকে চলে যায়। পরে মানিকতলা থানার তরফে জানানো হয়, এমন ঘটনার খবর তারা পায়নি।

তবে এই ঘটনা থেকে যে চিত্র জনসমুখ্যে উঠে আসে তা হলো , বাঁচার তাগিদ হয়তো একেই বলে যখন মানুষ নিজে বাঁচার জন্য সামান্য মনুষত্ব টুকুও হারিয়ে ফেলেন।

Show More

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: