West Bengal

গ্রিন জোনে মাত্র ২০ জন নিয়ে গাড়ি চালাতে রাজি নয় কেউই

এখন বাস চালানো মানে সংক্রমণের হার বেশি, আর বাসের খরচও কোলাবে না কিছু টাকায়

@ দেবশ্রী : প্রায় সারা দেশ জুড়ে চলছে করোনা মহামারী। আর তার সংক্রমণ রুখতেই আগামীকাল থেকে শুরু হচ্ছে লকডাউনের তৃতীয় পর্যায়। তবে এই লকডাউনের জেরে বিগত এক মাসেরও বেশি সময় ধরে বন্ধ সকল সরকারি-বেসরকারি পরিবহন ব্যবস্থা। তবে সম্প্রতি রাজ্য সরকারের নির্দেশিকা অনুযায়ী, আগামী সোমবার থেকে ‘গ্রীণ জোনে’ থাকা জেলা গুলিতে কুড়ি জন যাত্রী নিয়ে বেসরকারি বাস গুলি চলাচলের ছাড়পত্র পাওয়া গেছে। আর তা নিয়েই শুরু হয়েছে বিতর্ক।

মাত্র কুড়ি জন যাত্রী নিয়ে রাস্তায় নামা একটি বেসরকারি বাসের খরচ উঠবে তো? বাঁকুড়ার বাস মালিকদের এই প্রশ্নের পাশাপাশি করোনা সংক্রমণের আশঙ্কা করছেন সাধারণ মানুষের একাংশ। তাদের মতে এখনো ‘গ্রীণ জোনে’ থাকা বাঁকুড়া ‘রেড জোনে’ আসতে খুব বেশী সময় নেবে না।

পাত্রসায়র এলাকার বাস মালিক মদন বিশ্বাস এ অবস্থায় রাস্তায় বাস নামাবেন না জানিয়ে বলেন, প্রতিদিন পাঁচ হাজার টাকা খরচ, সেখানে মাত্র কুড়ি জন যাত্রী নিয়ে বাস চালালে দেড় হাজার টাকা রোজগার হবে। প্রতিদিন সাড়ে তিন হাজার টাকা ভর্তুকি দিয়ে বাস চালানো কোনও ভাবেই সম্ভব নয়।

একই কথা বলেন, বাস মালিক অঞ্জনা বিশ্বাসও। তার কথায়, ৬৬ টাকা লিটার ডিজেল। কুড়ি জন যাত্রী নিয়ে বাস চালিয়ে তেলের খরচ, কর্মচারীদের বেতন ও অন্যান্য খরচটাই উঠবে না। এই অবস্থায় ভর্তুকি দিয়ে কোন অবস্থাতেই বাস চালানো সম্ভব নয়।

এমন পরিস্থিতিতে বাস না চালানোর পক্ষেই সওয়াল করেছেন একাংশের সাধারণ মানুষ। শ্রীমন্ত দাস, অমিত দত্তরা বলেন, বাস চালালে সমস্যা বাড়বে বৈ কমবেনা। এর ফলে বাঁকুড়া গ্রীণ জোন থেকে রেড জোনে আসতে খুব বেশী সময় নেবেনা বলেই তারা দাবি করেন। তাহলে কী অডিও ওই কজন যাত্রী নিয়ে রাস্তায় গাড়ি নামবে ? কী সিদ্ধান্ত নেবে মালিক পক্ষ ?

Show More

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: