West Bengal

ঘরে অভুক্ত পেট, মিলছে না মজুরি

রাজ্যের ৩৭ টি চটকল মালিকের বিরুদ্ধে এফআইআর

পল্লবী : সোম এবং মঙ্গলবার এই দুদিনে রাজ্যের ৪৪টি চটকলের মধ্যে ৩৭টি চটকলের মালিকের বিরুদ্ধে ‌ থানায় এফআইআর করেছে ওই শ্রমিকেরা। কারণ হলো কাজ করা সত্ত্বেও মজুরি বাবদ কোনো টাকা পায়নি রাজ্যের চটকল শ্রমিকরা। সূত্রের খবর অনুযায়ী লক ডাউন চলতে থাকায় একটি টাকাও মজুরি বাবদ পায়নি তারা। ফলে রাজ্যের আড়াই লক্ষ চটকল শ্রমিকদের মজুরির জন্য ট্রেড ইউনিয়নগুলি চটকল মালিকদের সংগঠন আইজেএমএ-র পাশাপাশি চিঠি দিয়েছে মুখ্যমন্ত্রী, প্রধানমন্ত্রী, কেন্দ্রীয় বস্ত্রমন্ত্রী, কেন্দ্রীয় শ্রমসচিব রাজ্যের শ্রম মন্ত্রীকে বলে জানানো হয়েছে।

এটি যে প্রথম তা নয় এর আগেও মজুরি নিয়ে এমন বিক্ষোভ হয়েছে বহুবার। থানায় থানায় ডেপুটেশনও দেওয়া হয়েছে। কিন্তু কোন কিছুতেই কিছু না হওয়ায় এবার থানায় থানায় এফআইআর করা শুরু করেছে শ্রমিকেরা। হাওড়া হুগলি এবং দুই ২৪পরগনায় এই চটকল গুলি থাকায় সেখানকার সংশ্লিষ্ট থানাগুলিতে এফআইআর করা হয়েছে।

চটকল শ্রমিকদের এই এফআইআর কর্মসূচিতে সামিল ছিলেন সিটু উত্তর ২৪ পরগনা জেলা কমিটির সম্পাদক গার্গী চট্টোপাধ্যায়। তিনি অভিযোগ করেন, কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারের নির্দেশ অমান্য করছে চটকল মালিকরা। শ্রমিকদের লকডাউন চলাকালীন এরা কোনও বেতন দিচ্ছেন না বলে জানান।এর ফলে চটকলে শ্রমিকেরা ভয়াবহ আর্থিক সংকটের মুখে পড়েছে। অন্যদিকে বিসিএমইউ‌ নেতা তীর্থঙ্কর রায়ের মুখে একই কথা শোনা গিয়েছে। তিনি জানিয়েছেন, এফআইআর করতে বাধ্য হয়েছেন তারা। এরপর মিল মালিকদের বিরুদ্ধে যদি উপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণ না করা হয় তাহলে তারা আইনি লড়াইয়ের পথে যাবেন।

একেই লকডাউনের ফলে বন্ধ ছিল কাজ। টাকা আসছেনা এদিকে খিদের জেলা বাড়িতে থাকা পেট গুলোতে। যায় মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে চটকল গুলি খোলা হয়েছিল কিন্তু তাতে আর সুরাহা হলো কৈ ? টাকা দিচ্ছেনা মালিকরা। অনাহারেই দিন কাটছে শ্রমিকদের। হাজার আবেদন,বিক্ষোভ,ডেপুটেশন জমা করেও হয়নি কাজ তাই এবার সরাসরি এফআইআর করা হলো তার সাথে সাথে মুখ্যমন্ত্রীর কাছেও এই বিষয় নিয়ে আলোকপাত করতে আর্জি জানানো হলো।

Show More

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: