Nation

‘জুনের আগে কোনো ভাবেই শিথিল করা যাবেনা লকডাউন’

তবে জুনের ১ তারিখ থেকে কিছু দোকানপাট এবং পাবলিক প্লেস খোলার অনুমতি দিলেন জনসন

পল্লবী : আপাতত সুস্থ বরিস। দেশের অবস্থাও স্থিতিশীল কিছুটা আর তার মধ্যে থেকেই ১লা জুন পর্যন্ত লকডাউনের সময়সীমা ধার্য করলেন। রবিবার এমনটাই জানিয়েছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। তাঁর কথায়, এই মুহূর্তে ব্রিটেনে লকডাউন তোলার কোনও প্রশ্নই ওঠে না। তবে ১ জুন থেকে শর্তসাপেক্ষে কিছু নিয়ম শিথিল করা হবে। যেমন জুনের ১ তারিখ থেকে কিছু দোকানপাট এবং পাবলিক প্লেস খোলার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। তবে বাইরে থেকে বিমান সফরে ব্রিটেনে আসা সকলকেই বাধ্যতামূলক ভাবে কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে।

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন, এই পরিস্থিতিতে লকডাউন শিথিল করে দেওয়ার অর্থ এতদিন যাঁরা নিয়ম মেনে করোনা সংক্রমণ রুখে দেওয়ার চেষ্টা করছিলেন তাঁদের সমস্ত প্রচেষ্টাকে ব্যর্থ করে দেওয়া। অতএব এখনই লকডাউন উঠবে না। পরবর্তী পরিকল্পনা কী হবে তা নিয়ে সোমবার ব্রিটেনের পার্লামেন্টে আলোচনা করবেন বরিস জনসন। মূলত পাঁচটি পর্যায়ে কোভিড অ্যালার্ট জারি হয়েছে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে। এর মধ্যে চতুর্থ পর্যায়ে রয়েছে ব্রিটেন। সবচেয়ে ভয়াবহ পরিস্থিতি হয় পঞ্চম পর্যায়ে। তার থেকে মাত্র এক ধাপ পিছনে রয়েছে ব্রিটেন। অবিলম্বে পর্যায়ে তিনে আসা উচিত এই দেশের। সেজন্য যাঁরা ওয়ার্ক ফ্রম হোমের সুবিধে পাননি তাঁদের ক্ষেত্রে বিশেষ করে সোশ্যাল ডিসট্যান্স মেনে চলা এবং গণপরিবহন এড়িয়ে চলার কথা বলা হয়েছে ব্রিটেন প্রশাসনের তরফে।

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন, ১ জুন থেকে বেশ কিছু প্রাইমারি স্কুলও খুলতে পারে। চার থেকে এগারো বছরের বাচ্চাদের স্কুলে যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হবে। বিশ্বজুড়ে করোনা পরিস্থিতি দেখতে গেলে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পর ইউরোপেই সবচেয়ে বেশি প্রভাব ফেলেছে নোভেল করোনাভাইরাস। ইউরোপীয় দেশগুলির মধ্যে ব্রিটেনেই কোভিড সংক্রমণে মৃতের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি, ইতিমধ্যেই প্রায় ৩২ হাজার। পরিসংখ্যান অনুযায়ী, ব্রিটেনে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা মোট ২,১৯,১৮৩। কোভিড সংক্রমণে মৃত্যু হয়েছে ৩১,৮৫৫। এই অবস্থায় কি স্কুল খোলা সঠিক সিদ্ধান্ত হবে রাষ্ট্রের পক্ষে ? তবে যাই হোক সবকিছুই জুন মাসের পরে। এই অবস্থায় লকডাউন শিথিলের কোনো প্রশ্নই ওঠেনা, বলে জানিয়েছেন রাষ্ট্রপ্রধান।

Show More

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: