Big Story

ট্রাম্পের চরম সিদ্ধান্ত, WHO-র সঙ্গে সব সম্পর্ক ছিন্ন করল আমেরিকা

হু-র তহবিলে বছরে সর্বোচ্চ অনুদান (৪৫ কোটি ডলার) দিত আমেরিকাই।

প্রেরনা দত্তঃ করোনা মহামারীর আকার ধারণ করার পর থেকেই বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বিরুদ্ধে একাধিকবার ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এবার সরাসরি WHO -এর সঙ্গে সব সম্পর্ক ত্যাগ করলেন তিনি। গত ১৮ মে হু-কে ৩০ দিন সময় দিয়ে বলেছিলেন, এর মধ্যে ‘উল্লেখযোগ্য কোনও পদক্ষেপ’ না করলে সদস্যপদ প্রত্যাহারের কথা ভাববে আমেরিকা। ১২ দিন পেরোনোর আগেই চরম সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেললেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

সে দেশের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প শুক্রবার এ কথা ঘোষণা করেছেন। জানিয়েছেন, অভ্যন্তরীণ সংস্কারসাধনে WHO চূড়ান্ত ব্যর্থ হয়েছে। এখনও চিনের উপরে নির্ভরতা কাটিয়ে উঠতে পারেনি তারা। যে কারণে এই প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে সম্পর্ক ছেদের মতো কঠোর পদক্ষেপ নিতে আমেরিকা বাধ্য হল। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাকে বছরে ৪৫ কোটি মার্কিন ডলার অনুদান দেয় মার্কিন সরকার। সেই অর্থ এ বার থেকে অন্য সংস্থার মাধ্যমে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে বিভিন্ন স্বাস্থ্য প্রকল্পে খরচ করা হবে বলে ট্রাম্প জানিয়েছেন।

হু-র তহবিলে বছরে সর্বোচ্চ অনুদান (৪৫ কোটি ডলার) দিত আমেরিকাই। ফলে নিঃসন্দেহে সমস্যায় পড়ল হু। ট্রাম্পের কথায়, ‘‘চিনে যখন ভাইরাসটা প্রথম পাওয়া গেল, তখন সে দেশের কর্তারা নিজেদের দায়বদ্ধতার কথা ভুলে হু-কে চাপ দিয়েছেন যাতে তারা বিশ্বকে ভুল পথে চালিত করে। চিনা সরকারের ভুলের মাসুল দিচ্ছে বিশ্ব।’’ শুধু করোনা নয়, বাণিজ্য এবং এশীয়-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে আধিপত্য বিস্তার নিয়েও চিনকে বিঁধেছেন ট্রাম্প। বলেছেন, ‘‘চিন বলেছিল, হংকংয়ের স্বশাসনকে রক্ষা করবে। সেই কথা তারা রাখেনি। যাঁরা হংকংয়ের স্বশাসন খর্ব করলেন, তাঁদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ করব।’’

উল্লেখ্য, আমেরিকায় করোনা সংক্রমণ একপ্রকার নিয়ন্ত্রণের বাইরে। ইতিমধ্যেই মৃত্যু হয়েছে লক্ষাধিক মানুষের। করোনার এই পরিস্থিতি নিয়ে শুরু থেকেই WHO এবং চিনকে তোপ দেগে চলেছে আমেরিকা। চিনের অবশ্য অভিযোগ নিজেদের ব্যর্থতা ঢাকতেই বেজিং এবং WHO কে ঢাল করছেন ট্রাম্প। মহামারীর আকারে ছড়িয়ে পড়া এই মারণ ভাইরাসে এখনও পর্যন্ত বিশ্বের ২১৩টি দেশ ও অঞ্চলে আক্রান্তের সংখ্যা ৬০ লক্ষ ছুঁইছুঁই।

এর মধ্যে মারা গিয়েছেন ৩ লক্ষ ৬৫ হাজারের বেশি মানুষ। এই মারণ ভাইরাসে সর্বাধিক ক্ষতিগ্রস্ত আমেরিকা। শুধুমাত্র সে দেশে আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ১৭ লক্ষ ৮৭ হাজার। সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়েছেও আমেরিকায়। করোনায় মৃতের সংখ্যা ইতোমধ্যে ১ লক্ষের গণ্ডি ছাড়িয়ে গিয়েছে। করোনাভাইরাসকে ‘চিনের জঘন্য উপহার’ বলে বৃহস্পতিবার মন্তব্য করেছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের আঁচ পেতেই ফের সিঁদুরে মেঘ দেখছে জাপান, দক্ষিণ কোরিয়ার মতো দেশ। সংক্রমণ কিছুটা কমের দিকে থাকায় গত বুধবার সবে স্কুল খুলেছিল সোলে। ফের কিছু গুচ্ছ সংক্রমণের খবর মেলায় রাজধানী ও শহরতলি এলাকার ৫০০টিরও বেশি স্কুল আজ বন্ধ করে দিল প্রশাসন।

Show More

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: