Big Story

ত্রাণবিলি থেকে উদ্ধার কার্যে তদারকি, সব কিছুতেই ছিলেন তিনি, এবার সস্ত্রীক আক্রান্ত রাজ্যের সেই মন্ত্রী

প্রথম রাজ্য মন্ত্রিসভার কোনও সদস্য করোনা পজিটিভ হলেন। পরিচারিকার থেকেই সংক্রমণ বলে সন্দেহ।

প্রেরনা দত্তঃ এবার রাজ্যের এক মন্ত্রী সস্ত্রীক করোনা আক্রান্ত। কয়েক দিন আগে মন্ত্রীর বাড়ির এক পরিচারিকার করোনা উপসর্গ দেখা যায়। পরে তাঁর করোনা টেস্ট পজিটিভ হয়। এরপর সপরিবারে করোনা পরীক্ষা করান ওই মন্ত্রী। টেস্টে মন্ত্রী এবং তাঁর স্ত্রীর করোনা সংক্রমণ ধরা পরে। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রাজ্যের এক প্রভাবশালী মন্ত্রী। বৃহস্পতিবার রাতেই দমকলমন্ত্রী সুজিত বসুর দেহে করোনার জীবাণু রয়েছে বলে লালারসের নমুনা পরীক্ষায় ধরা পড়েছে। আপাতত হোম আইসোলেশনেই রয়েছেন মন্ত্রী।
তাঁর কোনও করোনা উপসর্গ নেই বলেই জানা গিয়েছে। মন্ত্রীর বাড়ির পাঁচজনের লালারসের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। বৃহস্পতিবারই সেই নমুনার রিপোর্ট আসে। সেখানে দেখা যায় দমকলমন্ত্রী, তাঁর স্ত্রী ও আরেক পরিচারিকা করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। তবে মন্ত্রীর ছেলে ও মেয়ের রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে। অপরদিকে মন্ত্রী করোনা আক্রান্ত হওয়ায় চিন্তিত রাজ্যের স্বাস্থ্যদফতর। বিগত কয়েকদিন তিনি এলাকায় এলাকায় ঘুরেছেন। আমফানে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকাগুলিতে গিয়ে উদ্ধারকার্যে তদারকি করেছেন। পাশাপাশি ত্রাণবিলিও করেছেন দমকলমন্ত্রী।
এদিকে রাজ্যের দমকলমন্ত্রী সুজিত বসুর সংস্পর্শে যাঁরা এসেছেন তাঁদেরও সন্ধান চলছে। ইতিমধ্যেই যাঁদের সন্ধান পাওয়া গেছে তাঁদের হোম কোয়ারান্টাইনে থাকার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। মন্ত্রীর শরীরে সংক্রমণ ধরা পড়ার সঙ্গে সঙ্গেই পশ্চিমবঙ্গের করোনা পরিস্থিতি ক্রমেই আরও জটিল হচ্ছে। গতকাল অর্থাৎ বৃহস্পতিবারই রাজ্যে একদিনে সর্বাধিক মানুষ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন বলে খবর, একদিনে ৩৪৪ জন করোনা পজিটিভ হিসাবে ধরা পড়েছেন। এর মধ্যে আবার ৭৫ জনই শহর কলকাতার বাসিন্দা।
এর আগে শাসক দলের এক বিধায়কও করোনার সংক্রমিত হয়েছেন। আপাতত তিনি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। দক্ষিণ ২৪ পরগনার ওই তৃণমূল বিধায়কের কয়েকজন ঘনিষ্ট জনের লালারসেও করোনা মিলেছে।
আচমকাই রাজ্যের দুই রাজনীতিবিদ করোনা আক্রান্ত হওয়ায় চিন্তিত রাজ্যের রাজনৈতিক মহল। কারণ বিভিন্ন সময়ে তাঁদের সাধারণ মানুষের মধ্যে যেতে হয়। তবে এই প্রথম রাজ্য মন্ত্রিসভার কোনও সদস্য করোনা পজিটিভ হলেন।

Show More

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: