Big Story

ত্রাণ নিয়ে কি দুর্নীতির গন্ধ , তাই কি দুর্গতদের হাতে কেন্দ্রের টাকা দেবার কথা বললেন ” দিলীপ “

রাজ্য সভাপতির 'সৌজন্য বোধে'র প্রশ্ন ফিরহাদ হাকিমের মুখে

পল্লবী : এর আগেও যখন ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল বাংলা তখন সাহায্যের থেকে বেশি দুর্নীতি চলেছে, দাবি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের। এর সাথে সাথে তিনি আরো লেখেন চিঠিতে যে, আমফানে কেন্দ্রের টাকা সরাসরি দুর্গতদের হাতে তুলে দেওয়া হোক। প্রধানমন্ত্রীকে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ আর্জি জানিয়েছেন। সংবাদমাধ্যমকে দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘পশ্চিমবঙ্গ বিজেপির তরফ থেকে আমরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে ত্রাণের টাকা ক্ষতিগ্রস্থদের কাছে সোজাসুজি টাকা দেওয়ার কথা বলেছি। কারণ আয়লা , বুলবুল , দু বছর আগের মালদহ – দিনাজপুরের বন্যার ক্ষতিপূরণ বন্টনে রাজ্য সরকার ব্যাপক দুর্নীতি করেছে।’

নরেন্দ্র মোদী বাংলায় পা রাখতেই বিজেপির রাজ্য সভাপতি তাঁর কাছে একটি চিঠি পাঠান। আর সেই চিঠির এবং সাথে সরাসরি রাজ্য সভাপতির তীব্র বিরোধিতা করেন কলকাতা পুরসভার প্রশাসক ফিরহাদ হাকিম। তিনি দিলীপ ঘোষকে কটাক্ষ করে বলেন,’বড়রা যখন কোনও সিদ্ধান্ত নেয়, কথা বলে। তার মধ্যে ছোটদের কথা বলতে নেই। মাথা গলাতে নেই। এটা আমরা ছোটবেলা থেকে শিখেছি। প্রধানমন্ত্রী এবং মুখ্যমন্ত্রীর মতো দুজন দক্ষ প্রশাসক যখন নিজেদের মধ্যে কোনও গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে আলোচনা করছেন তখন তার মধ্যে ঢোকা সাজে? এটা বড়দের ব্যাপার। ছোটরা নাক গলাবে কেন? ওনারা বোধহয় এই সৌজন্যটা জানেন না।’

গতকালই পশ্চিমবঙ্গ-এ আসেন প্রধানমন্ত্রী স্বয়ং এবং ঘুরে দেখেন বাংলার পরিস্থিতি সাথে ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী এবং রাজ্যপাল ধনকড়ও। এদিন বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন, শীঘ্রই কেন্দ্রীয় টিম এসে রাজ্যের পরিস্থিতি দেখে ক্ষয়ক্ষতির হিসেব করবে। এর পরে কেন্দ্র অর্থের ব্যবস্থা করবে। আপাতত কেন্দ্র এক হাজার কোটি টাকা দিচ্ছে রাজ্যকে।

এই মুহূর্তে বাংলার মানুষের যে করুন অবস্থা তারা যে কঠিন পরিস্থিতির সাথে লড়ছে এই সময়েও কি নিজেদের স্বার্থ, গোষ্ঠী স্বার্থ আর শ্রেষ্ঠত্বের লড়াই চালাবেন এই রাজনৈতিক ব্যাক্তিত্বরা ? একের পর এক লড়াই ! এখন যেখানে এই মানুষগুলোর সময় এসেছে সাধারণ মানুষের প্রতি তাদের ভালোবাসা তাদের দায়িত্বকে পুরোপুরি পালন করার তখনি নিজেদের মধ্যে যুদ্ধ জেতার লড়াইয়ে ব্যাস্ত তারা।

Show More

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: