Nation

দেশে অপরিবর্তিত জ্বালানীর দাম

আমেরিকার ফিউচার মার্কেটে তেলের দাম জলের চেয়ে কম হয়ে গিয়েছে। বিশ্বের ইতিহাসে তেলের দামে এত বড় পতন কখনো ঘটেনি।

প্রেরনা দত্তঃ গত বছর চারেকে এতদিন ধরে দেশের প্রায় সর্বত্র একই দাম থাকেনি জ্বালানীর যা হল ২০২০ সালের এপ্রিল মাসে। করোনা ভাইরাস বিশ্বজুড়ে অতি মহামারীর আকার ধারণ করেছে। করোনার থাবা বসেছে মার্কিন মুলুকেও। স্তব্ধ হয়ে গিয়েছে অর্থনৈতিক কার্যকলাপ। মন্দা যেন গ্রাস করছে গোটা বিশ্বের অর্থনীতিকে।

আজ কলকাতায় পেট্রোলের দাম ৭৩.৩০ টাকা। মুম্বইয়ের দাম ৭৬.৩১ টাকা প্রতি লিটার। দিল্লিতে পেট্রোলের দাম ৬৯.৫৯ টাকা। চেন্নাইয়ে দাম ৭২.২৮ টাকা। বেঙ্গালুরুতে দাম ৭৩.৫৫ টাকা। যা ৩০ এপ্রিল থেকে একই রয়েছে। কিছুদিন আগে দাম বেড়েছিল অসমে। সেখানে পেট্রোলের দাম বিভিন্ন জেলায় ওঠানামা করেছিল।

বিশ্বজুড়ে তেলের দাম কম হওয়ায় দেশের সমস্ত রাজ্যেই গত এক মাস ধরে অপরিবর্তিত জ্বালানীর দাম। বিশেষ করে মেট্রো শহরগুলিতে সারা এপ্রিল মাসে দামের পরিবর্তন হয়নি। যা শেষ কবে হয়েছিল তা বলা মুশকিল। লকডাউন চলায় দেশে তেলের তেমন প্রয়োজন হচ্ছে না। ফলে তেলের ভান্ডার গুলি এমনিতেই ভরে রয়েছে অর্থাৎ বাস্তবে ওই পরামর্শ মতো তেল কিনে ভবিষ্যতের জন্য মজুত রাখার উপায় নেই। বর্তমানে দেশের প্রায় ৬৬ হাজার পেট্রোল পাম্পগুলি একপ্রকার কানায় কানায় পূর্ণ রয়েছে।

মেট্রো শহরে দাম একইরকম রয়েছে গত এক মাস ধরেই। অসমে দাম বৃদ্ধির সময়ে সরকারি নোটিশের বিবৃতিতে বলা হয়েছিল, ‘অসমে দিজেলের জন্য ভ্যাট ফিক্স হয়েছে ২৩.৬৬ পয়সা অথবা প্রতি লিটারে ১৭.৪৫ টাকা, যেটা বেশি হবে তাই ধার্য হবে। অন্যদিকে পেট্রলের জন্য ট্যাক্স এবং অন্যান্য মোটর স্পিরিটের জন্য ৩২.৬৬ পয়সা অথবা ২২.৬৩ প্রতি লিটারে যেটা বেশি হবে তা দিতে হবে”। পেট্রল-ডিজেল সহ অন্যান্য মোটর স্পিরিটের পরিবর্তিত এই দাম এপ্রিলের ২২ তারিখ থেকে কার্যকর হয়। ২১ তারিখ গুয়াহাটিতে পেট্রলের দাম প্রতি লিটারে ছিল ৭৭.৪৭।

Show More

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: