Nation

দেশে লকডাউন বাড়ল আরও ২ সপ্তাহের জন্য

যে এলাকা কনটেইনমেন্ট জোন হিসাবে ঘোষিত হয়েছে, সেগুলি চারদিক দিয়ে সিল করা হবে।

প্রেরনা দত্তঃ ২ সপ্তাহের জন্য দেশে বাড়ল লকডাউন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রককে উদ্ধৃত করে জানাল এএনআই-পিটিআই। ১৭ মে পর্যন্ত লকডাউনের মেয়াদবৃদ্ধি। বন্ধ থাকবে সাধারণ যাত্রীদের জন্য বিমান, ট্রেন, মেট্রো ও বাস পরিষেবাও। দেশের কোথাও খোলা যাবে না মল, সিনেমা-থিয়েটার, জিম। বন্ধ থাকবে স্কুল, কলেজ ও অন্যান্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। কিন্তু ক্ষেত্র বিশেষে জনজীবন আগের তুলনায় অনেকটাই স্বাভাবিক করে তোলা হচ্ছে।

সরকারের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, ‘গ্রিন’ ও ‘অরেঞ্জ’ জোনের ক্ষেত্রে কিছু শিথিলতা আনা হবে। তবে দেশজুড়ে যে কোনো ‘জোনে’ নিরপেক্ষভাবে কিছু বিধিনিষেধ থাকবে বলেও জানানো হয়েছে। জরুরি প্রয়োজন ছাড়া অন্য কোনও কাজে সন্ধ্যা ৭টা থেকে পরের দিন সকাল ৭টা পর্যন্ত বাড়ির বাইরে বেরনো যাবে না।

মেয়াদ বাড়ানো হলেও অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড শুরু করতে লকডাউনের এই তৃতীয় পর্যায়ে কড়াকড়ি অনেকটা শিথিলও করা হয়েছে।

যে এলাকা কনটেইনমেন্ট জোন হিসাবে ঘোষিত হয়েছে, সেগুলি চারদিক দিয়ে সিল করতে হবে। শুধুমাত্র চিকিৎসা আর অত্যাবশ্যকীয় পণ্য সরবরাহের জন্য সিল করা এলাকা থেকে বেরনো বা প্রবেশ করা যাবে। বাকি সবধরণের কর্মকাণ্ড বন্ধই থাকবে ওই এলাকা।

ভারতে দ্বিতীয় দফার লকডাউনের মেয়াদ শেষ হচ্ছে ৩ মে রবিবার। শুক্রবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার শীর্ষ সদস্যদের সঙ্গে বৈঠক করেন। তারপরেই সন্ধ্যায় কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় লকডাউনের মেয়াদ আরও দুই সপ্তাহের জন্য বাড়ানোর নির্দেশিকা জারি করে। সেই নির্দেশিকায় ৩ মের পর থেকে কোথায় কী খোলা থাকবে, কী চালু করা যাবে তা বিস্তারিতভাবে জানানো হয়েছে। শহরাঞ্চলের রেড জোনে শুধু বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল, রফতানি পণ্য উৎপাদন, অত্যাবশ্যকীয় পণ্য সরবরাহ, আইটি হার্ডওয়্যার কারখানা, চটকল চালু করা যাবে। ওই এলাকায় ছোট পাড়ার দোকানগুলোও খোলা যাবে।

বেসরকারি অফিসের মোট কর্মীসংখ্যার ৩৩% কর্মী নিয়ে চালু করা যাবে, বাকিদের বাড়ি থেকে কাজ করতে হবে।

Show More

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: