West Bengal

নির্বোধ সমাজে খুনের খোরাক ‘মা’

স্ত্রী কে ফেরানোর জন্য মা কে খুন করলো ছেলে

পল্লবী : আবারো এক মর্মান্তিক ঘটনার শরিক হয়ে রইলো গোটা সমাজ। ছেলের হাতে খুন হলেন মা। উওর ২৪ পরগনার বাগদা থানার ঘাট পাতিলা পারুই পাড়ায়। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে,বৃহস্পতিবার ভোররাতে ৬১ বছর বয়সী সুমিত্রা বিশ্বাসকে কুড়ুল দিয়ে কুপিয়ে খুন করে ছেলে জয়গোপাল বিশ্বাস l ঘটনার অভিযোগের ভিত্তিতে ছেলেকে গ্রেফতার করেছে বাগদা থানার পুলিশ l

প্রাথমিক তদন্তে পুলিশ জানতে পেরেছে, ১২ বছর আগে বিয়ে হয়েছিল জয়গোপালের। তাদের একটি ছেলে ও একটি মেয়ে আছে। সাংসারিক অশান্তির কারণে স্ত্রী বাপের বাড়িতে চলে যায় l স্ত্রীর সঙ্গে সম্প্রতি ফোনে ফের যোগাযোগ হয় জয়গোপালের। মাকে মেরে ফেললে স্ত্রী তার সঙ্গে সংসার করবে সেই ভেবেই মাকে খুন করেছে জয় গোপাল l এই ব্যাপারে তদন্ত শুরু করেছে বাগদা থানা পুলিশ l যদিও স্থানীয় সূত্রে খবর, স্ত্রী চলে যাওয়ার পর থেকেই জয় গোপাল মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ফেলেছিল। সেই কারণেই এই বিপত্তি সে ঘটিয়েছে l বৃহস্পতিবার ধৃতকে বনগাঁ মহকুমা আদালতে পাঠানো হয়েছে।

কোথায় দাঁড়িয়ে আমাদের সমাজ ? কোনো নারী ধর্ষিত হলে সে প্রথমেই এই প্রশ্নটি ধর্ষকের দিকে ছুড়ে দেয় যে তার বাড়িতে মা আছেন কিনা ? কারণ তার মা ও একজন নারী আর সেই ধর্ষিতাও একজন নারী। আজকের এই ঘটনা এর স্পষ্ট উত্তর এনে দিলো। সমাজের এক সংখ্যক পুরুষের কাছে তার মা ও একজন খুনের উপাদান । স্ত্রীকে পেতে নাকি মা কে খুন করলেন ! ভাবলে তিরস্কার ছাড়া আর কিছুই আসে না মনে। এই শ্রেণীর পুরুষেরা আদৌ কি কোনোদিন বুঝবে জীবনে একজন নারীর মূল্য ? একজন মা-এর গুরুত্ব ?

Show More

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: