West Bengal

নৈহাটি পুরসভা হাতে রাখতে মরিয়া সরকার, আস্থা ভোট এড়াতে নিয়োগ প্রশাসক: ববির হাকিমের কৌশল !

২০১১ টি ১০১৪ পর্যন্ত যে কৌশলে বাম বোর্ড ওপর প্রশাসক নিয়োগ করেছিল এবার সেই পদ্ধতি অবলম্বন করা হয়েছে।

অনাস্থা এনেছেন পুরসভার ১৮ জন বিজেপি কাউন্সিলর। কিন্তু অনাস্থার প্রেক্ষিতে আস্থা ভোটে গেল না রাজ্য সরকার। বদলে নৈহাটি পুরসভায় সরাসরি প্রশাসক নিয়োগ করছে সরকার।

তৃনমুকের পুরানো কৌশল প্রয়োগ , নৈহাটিতে প্রশাসক নিয়োগ করলেন পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম . ৩১ জন কাউন্সিলরের মধ্যে ২৯ জন তৃণমূল থেকে বিজেপিতে যোগ দেওয়ায় পৌরবোর্ড বদলে যেতে পারে সেই আন্দাজেই এই সিদ্ধান্ত বলে জানা গেছে।

পুরমন্ত্রী বলেন নৈহাটি পুরসভায় প্রশাসক নিয়োগের সিদ্ধান্ত হয়েছে সরকারি ভাবে, পুর ও নগরোন্নয়ন সচিব সুব্রত গুপ্তর সঙ্গে কথা বলেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। প্বিক্ষুব্ধ কাউন্সিলরদের একাংশ অনাস্থা প্রস্তাব জমা দেন এদিন নৈহাটি পুরসভায় অনাস্থা আনে বিজেপি। । লিখিত চিঠি দেন নৈহাটির পুরসভার ১৮ জন বিজেপি কাউন্সিলর। যাঁরা সবাই-ই তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন।

নৈহাটি পুরসভার ২৯ ওয়ার্ডের থেকে ৩৫ ওয়ার্ডের কাউন্সিলরই বিজেপিতে যোগদান করেছেন। বলা যায় মুকুল পুত্র শুভ্রাংশুর বিজেপিতে যোগদানের দিন-ই কাঁচরাপাড়া, হালিশহর ও নৈহাটির মোট ৬৩ জন কাউন্সিলর দলবদল করেছেন।অন্য দিকে ৩৫ আসনের নৈহাটি পৌরসভায় ২৯টি আসনই তাদের দখলে বলে দাবি করে এরপরই এদিন অনাস্থা আনে বিজেপি।

বিজেপির সমর্থক ও স্থানীয় বাসিন্দারা বুধবারই নৈহাটি পৌরসভায় চেয়ারম্যানের ঘরে তালা লাগিয়ে দেন । উত্তেজিত বাসিন্দারা খুলে নিয়ে যান পৌরসভার সিসি ক্যামেরা ও হার্ড ডিস্ক। অভিযোগ মারধর করে পুরসভা থেকে বার করে দেওয়া হয় চেয়ারম্যান অশোক চট্টোপাধ্যায়কে।এরপর চেয়ারম্যানের ঘরে তালা লাগিয়ে দিয়ে দেওয়া হয়। খুলে নিয়ে যায় সিসি ক্যামেরা ও তার হার্ড ডিস্ক ।

Show More

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: