Nation

পেটের জ্বালা বড়ো জ্বালা, করোনা ভয় নিয়েই যেতে হবে কাজে

হটস্পট অঞ্চলেই খুললো কারখানা

পল্লবী : খোলা হলো কারখানা প্রাণের ভয় প্রাণের ঝুঁকি নিয়েও শ্রমিকদের যেতে হচ্ছে কাজে কারণ ঘরে বসে তো আর পেট চলবে না। করোনার ভয়াল গ্রাসের স্বীকার বাংলাদেশ। খোদ স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহেদ মালিক স্বপন আগেই জানিয়েছেন, দেশে করোনার সামাজিক সংক্রমণ চলছে। মৃতের সংখ্যা ১৪০ ছাড়িয়ে আরও বাড়ছে, সংক্রামিত রোগীর ৪০০০ পেরিয়ে উর্ধমুখী। করোনার হটস্পট বলে চিহ্নিত রাজধানী ঢাকা ও পার্শ্ববর্তী নারায়ণগঞ্জেই সর্বাধিক রোগী ৫০ শতাংশের বেশি রোগী চিহ্নিত। পুরোপুরি অবরুদ্ধ এই এলাকা।

বাংলাদেশ নিটওয়্যার ম্যানুফ্যাকচারার অ্যান্ড এক্সপোর্টার অ্যাসোসিয়েশনের সহ-সভাপতি মহ. হাতেম এই তথ্য জানিয়েছেন যে, এই পরিস্থিতিতে করোনার হটস্পট হিসেবে চিহ্নিত নারায়ণগঞ্জে রবিবার থেকে পোশাক শিল্প প্রতিষ্ঠানগুলি সীমিত আকারে খোলার সিদ্ধান্ত নেওয়া হলো। তবে এই অবস্থায় শ্রমিকরী জীবনের ঝুঁকি নিয়েই পোশাক কারখানায় যাচ্ছেন। তিনি বলেন, সরকারের নির্দেশ মেনে এবং শ্রমিকদের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে নারায়ণগঞ্জে সীমিত আকারে কারখানার কাজ শুরু হচ্ছে। জেলার বাইরের শ্রমিকদের এখনই কাজে যোগ না দেওয়ার নির্দেশ থাকছে।

তবে কারখানা খোলার এই সিদ্ধান্তের ফলে মালিকদের মুনাফার বলি হবেন সাধারণ শ্রমিক কর্মীরা। এমনই মনে করছেন শ্রমিক সংগঠনগুলির প্রতিনিধিরা। আর মালিকপক্ষ বলছেন, নারায়ণগঞ্জের পরিস্থিতি উদ্বেগজনক। আবার কর্মহীন শ্রমিকদের অবস্থা আরও করুণ। এর সঙ্গে রয়েছে নিটওয়্যার পণ্যের প্রায় ছয় বিলিয়ন ডলারের অর্ডার। সেটা বাতিল হলে আরও লোকসান। ফলে ঝুঁকি নিয়েই খুলতে হচ্ছে কারখানা।

পেটের দায় যে বড়ো দায় তা এতদিন হয়তো সমাজের সকল শ্রেণীর মানুষ বুঝতেন না। আর এখনো হয়তো অনেকেই বুঝছেন না কিন্তু গণমাধ্যম তা তুলে ধরছে সেই সকল মানুষের কাছে। বেঁচে থাকলে খেতে হবে আর কাজ না করলে খাওয়ার জুটবে কোথা থেকে তাই বাধ্য হয়ে বেরোতেই হবে বাইরে কাজে যেতেই হবে কিন্তু ভয় যে পিছু ছাড়েনা !

Show More

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: