Nation

প্রকট হচ্ছে ভারতবাসীর মনে মৃত্যু ভয়, আক্রান্তের সংখ্যা পৌঁছে গেল ৪২ হাজার ৫৩৩

ভারতে করোনা পরিস্থিতিতে উদ্বেগ বাড়াচ্ছে মহারাষ্ট্র

পল্লবী : ভারত যে মৃত্যুপুরীতে পরিণত হবে তা অনিবার্য। এবার স্পষ্ট তা অনুভব করছে ভারতবাসী। সংখ্যা পৌঁছে গেল ৪২ হাজার ৫৩৩-এ। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত ২ হাজার ৫৫৩ জন। স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তথ্যানুযায়ী এই মুহূর্তে হাসপাতালে চিতিত্‍সাধীন ২৯ হাজার ৪৫৩ জন। সুস্থ হয়ে বাড়িতে ফিরেছেন ১১ হাজার ৭০৭ জন। মৃতের সংখ্যা ১ হাজার ৩৭৩। সোমবার আইসিএমআর এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, চার মে অর্থাত্‍ আজ পর্যন্ত ১১ লক্ষ ৭ হাজার ২৩৩টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে।

মহারাষ্ট্রের অবস্থা যত দিন গড়াচ্ছে টোটো শোচনীয় হচ্ছে। আক্রান্তের সংখ্যা ১২ হাজার ৯৭৪। গত ২৪ ঘণ্টায় ওই রাজ্যে নতুন করে আক্রান্ত ৬৭৮ জন। মৃত্যু হয়েছে ২৭ জনের। মহারাষ্ট্রে রবিবার পর্যন্ত করোনায় মৃতের সংখ্যা ৫৪৮। ৩ মে মুম্বইয়ের ধারাভি বস্তিতে নতুন করে কোভিড আক্রান্ত ৯৪ জনের। সেদিন দুজনের মৃত্যু হয়েছে। বিএমসি এক বিবৃতিতে জানিয়েছে এশিয়ার বৃহত্তম বস্তিতে সবমিলিয়ে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৫৯০। মৃত্যু হয়েছে ২০ জনের। রবিবার রাত পর্যন্ত দিল্লিতে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৪ হাজার ৫৪৯ জন। একদিনে রাজধানীতে নতুন করোনা আক্রান্তের সংখ্যা রেকর্ড করল। গতকাল ৩ তারিখে দিল্লিতে নতুন করোনা পজিটিভ রোগী ৪২৭ জন।

মারণ ভাইরাসে মারাত্মকভাবে আক্রান্তের তালিকায় রয়েছে গুজরাট। সেখানে মোট আক্রান্ত ৫ হাজার ৫৫ জন। রাজস্থানে ২ হাজার ৮৮৬ জন আক্রান্ত। পশ্চিমবঙ্গে আক্রান্ত ৯২৭ জন। উত্তরপ্রদেশে মোট আক্রান্ত ২ হাজার ৬৪৫ জন। হাসপাতালে ভর্তি ১ হাজার ৮৪৮ জন। বিহারে ৪৮২ জন, হরিয়ানায় ৩৯৪ জন, ওড়িশায় ১৬০ জন, ঝাড়খণ্ডে ১১৫ জন। অন্যদিকে ১০ জনের তেকেও কম করোনা আক্রান্তের সন্ধান মিলেছে অরুণাচলপ্রদেশ, মণিপুর, মিজোরাম, পুদুচেরি ও ত্রিপুরাতে।

সব কিছুর মধ্যে সব চেয়ে বেশি প্রশ্ন উঠছে পশ্চিমবঙ্গ নিয়ে। সরকারের বিরুদ্ধে সাধারণের অভিযোগ যে এখনো তাদের কাছ থেকে গোপন করা হচ্ছে রাজ্যের করোনা রিপোর্ট। তার সাথে সমান তালে করা হচ্ছে দ্বিচারিতা। কেন এত গোপনীয়তা ? কেন এই দ্বিচারিতা ? প্রশ্ন তুলছে সাধারণ মানুষ। তারসাথে তারা এ কথাও বলছেন যে রাজ্যের রিপোর্ট যাতে জন সমুখ্যে না আসে তাই কেন্দ্রীয় দলের আসা টা প্রথমে মেনে নেয়নি রাজ্য সরকার।

Show More

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: