Analysis

ফেল কড়ি মাখ তেল , রোজগার নেই তেল মাখাতে উজাড় বাঙলা : দ্বিগুন যাতায়াত খরচ

সোমবার থেকে কলকাতার রাস্তায় বেসরকারি বাস নামবে কিনা তা নিয়ে সিদ্ধান্ত হতে পারে রবিবার

পল্লবী : ইতিমধ্যেই রাজ্যজুড়ে লোকডাউন শিথিলের পথে। ধীরে ধীরে স্বাভাবিকতার পথে হাটছে পরিস্থিতি। ধীরে ধীরে খুলে যাচ্ছে সরকারি-বেসরকারি অফিস। এবং কর্মীদের সুবিধার কথা মাথায় রেখেই নামানো হবে বেসরকারি বাস গুলি। তবে তা কবে তা নিয়ে এখনো রয়েছে ধোঁয়াশা। সোমবার থেকে কলকাতার রাস্তায় বেসরকারি বাস নামবে কিনা তা নিয়ে সিদ্ধান্ত হতে পারে রবিবার। আগামিকাল বিভিন্ন বাস মালিকদের বৈঠক রয়েছে।

তবে মুখ্যমন্ত্রী বলেন বাসে যেকটি সিট সেকজন যাত্রী নিয়েই চলবে বাস। এই সিদ্ধান্তে কিছুটা খুশি হলেও মালিক গোষ্ঠী একেবারেই রাজি নন যে আগের ভাড়াই বহাল থাকুক। ২০ জন যাত্রী নিয়ে পুরনো ভাড়ায় রাস্তায় বেসরকারি বাস চালাতে আগ্রহ দেখাননি কেউই। তাঁদের ভাড়া বাড়ানোর প্রস্তাবে সায় দেয়নি রাজ্য সরকারও। যদিও ২০ আসনে যাত্রী নিয়ে বাস চালাতে গিয়ে লোকসান হয়েছে সরকারি বাসেও। তবে সব আসনে যাত্রী নিয়ে বাস চালানোর সিদ্ধান্তে খুশি মালিকরা। আগামিকাল বাস মালিকদের নিয়ে বৈঠকে বসছে জয়েন্ট কাউন্সিল অব বাস সিন্ডিকেট। জয়েন্ট কাউন্সিল অব বাস সিন্ডিকেট সাধারণ সম্পাদক তপন বন্দোপাধ্যায়ের দাবি, “মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণা ভাল। তবে বাস পরিষেবা কি ভাবে চালু হবে বা সব আসনেও যাত্রী নিয়ে গেলেও নুন্যতম সাত টাকা ভাড়ায় আমাদের খরচ উঠবে কি না তা দেখা হচ্ছে। সেই কারণেই আমাদের সংগঠনের প্রতিনিধিদের নিয়ে বৈঠক করব।”

অন্যদিকে, রাজ্য সরকারের কাছে মিনিবাস চালাতে চেয়ে ইতিমধ্যেই নতুন প্রস্তাব জমা দিয়েছে মিনিবাস সংগঠনগুলি। রাস্তায় নামতে পারে মিনিবাসও। শীঘ্রই এই বাসের নামার সম্ভাবনা। কলকাতা সহ হাওড়া, দুই ২৪ পরগণা, আসানসোলে চালানো যেতে পারে মিনিবাস। সেক্ষেত্রে নুন্যতম ভাড়া হতে পারে ১৪ টাকা। এই অবস্থায় ফের রাস্তায় বাস নামাতে চেয়ে রাজ্য পরিবহন দফতরের কাছে আবেদন জানালো মিনিবাস সংগঠন। কিলোমিটার কমিয়ে বাসের ভাড়ার তালিকা তাঁরা ইতিমধ্যেই পাঠিয়ে দিয়েছে পরিবহন দফতরে। তাদের দেওয়া তালিকায় যা আছে তা হলো – প্রথম ২ কিলোমিটারের ভাড়া হবে ১৪ টাকা। পরবর্তী ৫ কিলোমিটারের ভাড়াগুলি ৫ টাকা করে বাড়ানোর প্রস্তাব দেওয়া হল।

ফলে নতুন প্রস্তাব মত ভাড়া হবে, প্রথম ২ কিলোমিটার ভাড়া ১৪, ২ থেকে সাত কিলোমিটার ভাড়া ১৯ টাকা, ৭ থেকে ১২ কিলোমিটার ভাড়া ২৪ টাকা, ১২ থেকে ১৭ কিলোমিটার ভাড়া ২৯ টাকা, ১৭ থেকে ২২ কিলোমিটার ৩৪ টাকা, ২২ থেকে ২৭ কিলোমিটার ভাড়া হবে ৩৯ টাকা। সাধারণত মিনিবাসে ২৭ থেকে ৩০ আসনের হয়ে থাকে। মিনিবাস সংগঠন তাঁদের প্রস্তাবে জানিয়ে দিয়েছে, তাঁরা ১২ থেকে ১৪ আসনের যাত্রী নিয়ে এই প্রস্তাবিত ভাড়ায় বাস চালাতে রাজি। সেক্ষেত্রে তাঁদের খরচ তাঁরা তুলে নিতে পারবে।

আগামী পয়লা জুন থেকে এই রাজ্যে লকডাউন অনেকটাই শিথিল হচ্ছে। ৮ জুন থেকে বিভিন্ন অফিসও খোলার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এই পরিস্থিতিতে বাস চালাতে কোনও অসুবিধা হবে না বলেই মত পরিবহণ দফতরের আধিকারিকদের।মিনিবাস সংগঠনের নেতা প্রদীপ নারায়ণ বসু জানান, “আমাদের ২৫০০ বাস আছে। আমরা আমাদের ভাড়া ও কিলোমিটারের মধ্যে ফারাক করে নতুন ভাড়ার তালিকা জমা দিয়েছি। শুধু কলকাতা নয়, জেলার বাস মালিকরাও বাস চালাতে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। আশা করি সরকার আমাদের এই সিদ্ধান্ত মেনে নেবেন।” তবে মুখ্যমন্ত্রীর নয়া ঘোষণায় পরিস্থিতি অনেকটাই সহজ হয়েছে বলে মনে করছেন মিনিবাস সংগঠনের প্রতিনিধিরা। মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণায় খুশি সারা বাংলা বাস মিনিবাস সমন্বয় সমিতির নেতা রাহুল চট্টোপাধ্যায়। তিনি জানিয়েছেন, “মুখ্যমন্ত্রীর এই সিদ্ধান্ত যথেষ্ট ইতিবাচক। আমরা চাই সরকার একটা বৈঠক ডেকে এই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিক।”

তবে যাই ভাড়া নির্ধারিত হোক না কেন সাধারণ মানুষের দাবি তা যেন ব্যায় সাপেক্ষ হয়। চলতি লকডাউনে যেমন বাস মালিকেরা কাজ না করে বিপাকে পড়েছেন তেমনই সাধারণ মানুষের একটা বিরাট অংশও ছিল একেবারে কর্মহীন। তাই সকলের পকেটের কথা মাথায় রেখেই যেন চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

Show More

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: