Analysis

বাজার মন্দা , চাকরির ঘোষণায় ভরসা করেই ২১ শে জুলাই বাজিমাতের চেষ্টা !

বিপদের মধ্যে তৃণমূল। সমর্থন কমছে। নিজের ভাব মূর্তিতে চূড়ান্ত ধাক্কা । মমতা ম্যাজিক ধরে রাখতেই পুরানো দাবীর নতুন ঘোষণা।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘোষণা করলেন ৩৪ হাজার চাকরি দেওয়া হবে কর্মহীন দের। বিষয়টা হচ্ছে ৩৪ হাজার পদ খালি অফিসার থেকে চতুর্থ কর্মী। এতো দিন হল নতুন নিয়োগের কথা বলছিলেন না সরকার। লোকসভা ভোটে মমতা ভরসা জন-মানুষে অনেকটাই কমেছে তাই নিজের জমি ফেরত আনতে মরিয়া চেষ্টা।
অবিলম্বে ৩৪ হাজার পদে নিয়োগ একই সঙ্গে, ঘোষণা মমতার। সেই জন্য গুটিয়ে ফেলা স্টাফ সিলেকশন কমিশন নতুন করে গড়া হবে।
আর শূন্য পদই অবিলম্বে এবং একসঙ্গে পূরণ করার কথা বুধবার বিধানসভায় ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘‘বিশেষ কর্মসূচির মাধ্যমে দ্রুত ওই সব পদ পূরণ করা হবে।’’

এই দাবি বাম পরিষদীয় নেতা সুজন চক্রবর্তী লোকসভা নির্বাচনের আগে দাবি করেছিলেন যে ” সরকার যা কর্মসংস্থানের কথা বলছেন তার সাথে বাস্তব মিলছে না , ” .
ফেসবুকে তৃণমূলের সাংসদ ডেরেক একটি ভিডিও-তে কর্মসংস্থানের যে দাবি করেছিলেন তার কোন বাস্তবের সাথে মিল নেই বলে বিরোধীরা পাল্টা দাবি করেছিলেন।
বাস্তবে রাজ্য সরকারে নতুন করে অনেক দিন নিয়োগ হয়নি। তার ফলে যারা অবসর নিয়েছেন তাদের জায়গায় কোনো নিয়োগ হয় নি। তার ফলে কর্মীহীন অনেক দফতর , মন্থর হয়েছে কাজের গতি।
মমতা বন্ধ্যোপাধ্যায় বলেন ” এখন ৩৩ হাজার ৬৮৭ পদ ফাঁকা। তার মধ্যে ১৮ হাজার ৫২৭টি পদ অসংরক্ষিত। অসংরক্ষিত পদের ১০% আর্থিক ভাবে পিছিয়ে থাকা সাধারণ শ্রেণির জন্য রাখা থাকবে। অসংরক্ষিত পদের পাশাপাশি সংরক্ষিত থাকবে ১৫ হাজার ১৬০টি পদ। তার মধ্যে তফসিলি জাতির জন্য ৭৪১১, তফসিলি জনজাতির জন্য ২০২১ এবং ওবিসি বা অন্যান্য অনগ্রসর শ্রেণির জন্য ৫৭২৮টি পদ সংরক্ষিত থাকবে। মুখ্যমন্ত্রী জানান, ‘গ্রুপ এ’ ‘গ্রুপ বি’, ‘গ্রুপ সি’ এবং ‘গ্রুপ ডি’ মিলিয়েই প্রায় ৩৪ হাজার পদ ফাঁকা “। রাজ্য সরকার নতুন ভাবে নিয়োগ পদ্ধতি গড়ে তুলবেন তারই জন্য স্টাফ সিলেকশন কমিশন নতুন করে গড়া হবে।

সামনেই ২১ শে জুলাই। হরিশ চ্যাটার্জী স্ট্রিটে চিন্তার ভাঁজ, প্রশ্ন একটাই লোক হবে তো ? আর তখনি হাজির চাকরির ম্যাজিক। পাশাপাশি কলকাতা পৌরসভা থেকে রাজ্যের বহু দফতরে নিয়োগের প্রয়োজন আছে।মানছেন সরকার।

Show More

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: