Analysis

বাদুড়ের এরূপ মৃত্যু ঘিরে জন্মাচ্ছে ভয়, তবে পশু চিকিৎসকেরা বলছেন ডিহাইড্রেশনের ফলেও এমন হতে পারে

সম্প্রতি গোরক্ষপুর জেলার বেলঘাট অঞ্চলে পাওয়া যায় ৩০০ বাদুড়ের মৃতদেহ

পল্লবী : গত কিছু দিনে দেশে বেড়েছে বাদুড়ের মৃত্যুর সংখ্যা। সাথে প্রবল আশঙ্কা সংক্রমণ ছড়ানোর। এক আধিকারিক জানিয়েছেন, উত্তর প্রদেশের বালিয়ায় শেষ কিছুদিনে এই ছবি উঠে এসেছে। গ্রামবাসিরাও জানিয়েছেন, মানিয়ার অঞ্চলে গাছ থেকে মরা বাদুড় ঝরে পরছে। স্বাস্থ্য দফতরের একটি দল এবং ডাক্তাররা ওই গ্রামে পৌঁছে স্যাম্পেল নিয়েছে। জেলার বনদফতরেড় অফিসার শ্রদ্ধা যাদব জানিয়েছেন, এই ঘটনা রাজ্য সরকার এবং বনদফতরের নজরে এসেছে এবং টেস্ট করার জন্য চারটি স্যাম্পেল সংগ্রহ করা হয়েছে। তিনি আরও জানান, টেস্ট করার পরে রিপোর্ট এলে তবেই এমনভাবে বাদুড়ের মৃত্যুর কারণ জানা যাবে।

চলতি সপ্তাহের শুরুর দিকে গোরক্ষপুর জেলার বেলঘাট অঞ্চলে এমনই ঘটনা দেখা গিয়েছে। ওই অঞ্চলের আমবাগানে মরে পড়ে থাকতে দেখা গিয়েছে ৩০০ বাদুড়। একই ঘটনা দেখা গিয়েছে মধ্যপ্রদেশেও। জানা গিয়েছে, বেতুল জেলার বেহরা ধানা অঞ্চলে, ইউক্যালিপটাস গাছে ঝুলন্ত কয়েক ডজন বাদুড় মারা যাওয়ার পরে সেগুলি একে একে নীচে পড়ে গিয়েছে। এমনকি বেশ কয়েকটি বাদুড় এখনও মৃত অবস্থায় গাছের উপর ঝুলছে।

বিশেষজ্ঞদের মনে এটাই চিন্তা বাড়াচ্ছে যে এর থেকে নতুন করে সংক্রমণ ছড়াতে পারে বিপুল পরিমান। তবে এই বিষয় নিয়ে পশু চিকিত্‍সকেরা প্রাথমিক ভাবে জানাচ্ছেন, তীব্র গরমের কারণে এমনটা হতে পারে। বলা হচ্ছে মৃত বাদুড়ের মরাদেহ পুরোপুরি ডিহাইড্রেটেড ছিল। ব্যাপক গরম ও জলের অভাবের কারণে এই মৃত্যু হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। তবে নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট আসার পরেই সঠিক তথ্য জানা যাবে। তবে একটা সুপ্ত ভয় কাজ করছে সকলের মনেই তাই সম্পূর্ণ সাবধানতা অবলম্বন করেই হবে যাবতীয় পরীক্ষা।

Show More

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: