West Bengal

বিচার কি পাবে বরুন বিশ্বাস : প্রশ্ন সুটিয়ার মানুষের

বরুন বিশ্বাস নেই কিন্তু খুনিরা রয়েছে বেঁচে , সাজা এখনো অধরা

বরুন বিশ্বাসের অষ্টম হত্যা-দিবসে মর্যাদা সুরক্ষা আন্দোলন কমিটির কক্ষ থেকে বনগাঁ শহর থেকে গাইঘাটার সুটিয়ায় বরুন বিশ্বাসের বাড়ি পর্যন্ত সাইকেল রেলি।
মেলেনি দোষীদের সাজা। মামলার খুব বেশি অগ্রগতিও হয়নি। মূল অভিযুক্তরা সকলে এখনও গ্রেফতার হয়নি। অভিযোগ, নাগাল মেলেনি ‘প্রকৃত’ অপরাধীদেরও। সিবিআই তদন্ত চেয়ে ইতিমধ্যেই হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছে সুটিয়া গণধর্ষণ কাণ্ডের অন্যতম সাক্ষী নিহত বরুণ বিশ্বাসের পরিবার।সেই খেত্রেও সফল হন নি প্রতিবাদীরা।

শিয়ালদহের মিত্র ইনস্টিটউশনের (মেন) বাংলার শিক্ষক কে ২০১২ সালের ৫ জুলাই গোবরডাঙা স্টেশনের কাছে দুষ্কৃতীদের গুলিতে খুন করে , বছর আটত্রিশের বরুণ। ওই ঘটনায় এখনও পর্যন্ত ৭ জনকে গ্রেফতার করেছে সিআইডি। মূল অভিযুক্ত, তথা সুটিয়া গণধর্ষণ কাণ্ডে যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত সুশান্ত চৌধুরী কয়েক মাস আগে আলিপুর সেন্ট্রাল জেলে থাকাকালীনই মারা গিয়েছে। ধৃত বাকি ৬ জনের মধ্যে এক জনের বয়স আঠারোর কম হওয়ায় জুভেনাইল আদালতে বিচার হয়েছে তার। সে তিন বছরের সাজা খাটছে। বাকি ৫ জনের বিচার চলছে বনগাঁ মহকুমা আদালতে।

২০১২ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর বনগাঁ আদালতে জমা দেওয়া সিআইডির একশো পাতার চার্জশিটে ১০ জনের বিরুদ্ধে খুনের অভিযোগ আনা হয়। এদের মধ্যে তিন জন পলাতক। ঘটনার ৮৭ দিনের মাথায় জমা পড়া ওই চার্জশিটে ৫২ জনকে সাক্ষী করা হয়েছে। তারপর আদালতে চার্জগঠন করে শুরু হয় শুনানি প্রক্রিয়া। পুলিশ জানায়, ৫২ জন সাক্ষীর মধ্যে এখনও পর্যন্ত একজনের সাক্ষ্যগ্রহণ হয়েছে। তা-ও অসম্পূর্ণ। ওই সাক্ষী বরুণের দাদা অসিত। তিনিই মামলার অভিযাগকারী।

Show More

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: