Big Story

বিজেপি কি পাল্টা রাজনীতির পথে : গ্রেফতার চিদাম্বরাম , রাতভর জেরার মুখে !

INX মিডিয়া কাণ্ডে প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী পি চিদম্বরমকে গ্রেফতার করে সিবিআই।প্রথমে লুকোচুরি, তারপর টান টান নাটক শেষে বুধবার রাতেই গ্রেফতার বাড়িতে। , বিশাল পুলিশ বাহিনী বাড়ী ঘিরে রাখে।

আজকের সঙ্গেগল্পের কোটায় একটা মিল আছে । আর ঠিক একই ভাবে কংগ্রেস দফতরে এসে চিদাম্বরাম দাবি করলেন, তিনি নির্দোষ। রাজনৈতিক মহলে আলোচনা , অমিত শাহ কি তা হলে এ বার বদলা নিলেন? চিদম্বরমের আইনজীবী, সঙ্গী ও কংগ্রেস নেতা সলমন খুরশিদ বললেন, ‘‘এ ব্যাপারে আমি কিছু বলব না। কিন্তু চিদম্বরমের ভাবমূর্তি বিলকুল সাফ।’’

সেই সময় অরুণ জেটলির নামে রাজধানীর অশোক রোডের ৯ নম্বর বাংলোটি বরাদ্দ ছিল । জেটলি রাজ্যসভার বিরোধী দলনেতা। প্রতিদিন আসতেন এক ব্যক্তি তিনি অমিত শাহ। দুপুর পেরিয়ে বিকেল গড়াতো বিশেষ দরবারের । আর প্রায় রোজই চুপ করে বসে থাকতেন আজকের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী।

অমিত শাহ তখন রাজ্যছাড়া , সোহরাবুদ্দিন ভুয়ো সংঘর্ষ মামলায় ।তার অধিকার নেই গুজরাতে প্রবেশ করার ক্ষেত্রে। আর আগে তাঁকে গ্রেফতারও করেছিল সিবিআই।অমিত শাহ গ্রেফতারির ঠিক আগে আমদাবাদের বিজেপি দফতরে গিয়ে বলে এসেছিলেন, সব অভিযোগ মিথ্যা। এই মামলা থেকে তিনি পরে মুক্তি পান।

চিদাম্বরাম কে দিল্লিতে সিবিআই-এর সদর দফতরে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে তাঁর স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়। বিশেষ সূত্র মারফত রাতভর তাঁকে জেরা করেন সিবিআই আধিকারিকরা। আজই চিদম্বরমকে বিশেষ সিবিআই আদালতে তোলা হবে। বেলা ২ টোর দুটোর সময় তাঁকে আদালতে তোলার সম্ভাবনা। ১৪ দিনের সিবিআই হেফাজতে নেওয়া হতে পারে প্রাক্তন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে।

রাজনৈতিক সমালোচকরা বলছেন ‘আজ যদি জেটলি এতটা অসুস্থ না থাকতেন, হয়তো সিবিআই-ইডির এমন অপব্যবহার হত না।জেটলি ও চিদাম্বরাম দুজনের বন্ধুত্ব নিবিড় সে কথা সব পক্ষের জানা , প্রকাশ্য রাজনৈতিক বিরোধ যা-ই থাক, তলে তলে বিরোধী নেতাদের সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রাখতে জানতেন জেটলিরা। বিরোধী নেতাদের সুবিধা-অসুবিধা দেখতেন। ‘আজকের’ বিজেপিতে যা বিরল।’

ইডি-সিবিআই মঙ্গলবার থেকে আচমকাই বেপাত্তা হয়ে যান চিদম্বরম। এর পর লুকআউট নোটিস জারি করে তদন্ত কারী সংস্থা ।চেষ্টার কসুর করেন নি তিনি কিন্তু সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হন চিদম্বরমের দুঁদে আইনজীবীরা- সলমন খুরশিদ, কপিল সিব্বাল এবং অভিষেক মনু সিঙ্ঘভি। ঠিক এই সময় আরেকটি গুরুত্ব পূর্ণ মামলা চলায় ,সুযোগ হলনা এই আবেদনের সওয়াল জবাবের । এর ফলে চিদম্বরমের গ্রেফতারি অনেকটাই নিশ্চিত হয়ে গিয়েছিল।পি চিদাম্বরাম গতকাল সন্ধেয় কংগ্রেসের সদর দফতরে হাজির হয়ে সাংবাদিক বৈঠক করেন। নিজেকে নির্দোষ বলে দাবি করেন তিনি।সিবিআই-ইডি তখনই কংগ্রেসের সদর দফতরের উদ্দেশে রওনা দেয় ।প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী দলের দফতর ছাড়েন তদন্তকারীরা পৌঁছনোর আগেই ।চিদম্বরম জোড়বাগে নিজের বাড়িতে চলে যান।সিবিআই কর্তারা তাঁকে পিছু ধাওয়া করেন । সেই সময় দরজা বন্ধ থাকায় বাড়ির পাঁচিল টপকে বাড়িতে ঢুকে পড়েন তাঁরা। গ্রেফতারি এড়াতে সবরকম চেষ্টাই করেছিলেন চিদম্বরম। কিন্তু গোয়েন্দা সংস্থার আধিকারিকদের সামনে ধরা দেওয়া ছাড়া আর কোনও পথ খোলা ছিল না চিদম্বরমের।

Show More

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: