Economy Finance

“ভারতের ইতিহাসে সব থেকে ভয়ঙ্কর মন্দা সম্ভবত এ বছরেই দেখতে হতে পারে”,বার্তা ক্রিসিলের

আগাম দিন গুলির আর্থিক অবনতির হার ক্রমশ ভাবাচ্ছে

পল্লবী : দীর্ঘশ্বাস পড়ছে, প্রবল চিন্তার মেঘ জমছে ভবিষ্যৎ নিয়ে। এত বৃহৎ পরিমান আর্থিক মন্দার সাথে বহন লড়েনি দেশ। আবার মাথা তুলে দাঁড়াতে পারবেতো ? চিন্তায় আর্থিক সংস্থাগুলি। এই বিষয়ে সামান্য পর্ব ইঙ্গিত দিয়েছিলো উপদেষ্টা সংস্থা গোল্ডম্যান স্যাক্সের রিপোর্টে। চলতি অর্থবর্ষে ভারতে অর্থনীতির সঙ্কোচনের পূর্বাভাস দিয়েছে একের পর এক মূল্যায়ন ও আর্থিক সংস্থা। মঙ্গলবার উদ্বেগ বাড়িয়ে রেটিং সংস্থা ক্রিসিলের বার্তা, ভারতের ইতিহাসে সব থেকে ভয়ঙ্কর মন্দা সম্ভবত এ বছরেই দেখতে হতে পারে।

অন্যদিকে স্টেট ব্যাঙ্কের গবেষণা শাখা ইকোর‌্যাপের রিপোর্ট জানিয়েছে, ঝিমিয়ে থাকা অর্থনীতি লকডাউনে পা রেখেছিল মার্চের শেষে। ফলে জানুয়ারি-মার্চে বৃদ্ধির হার নামতে পারে ১.২ শতাংশে। আর সব মিলিয়ে গত অর্থবর্ষে তা হতে পারে ৪.২%। তবে অর্থনীতির বহর শূন্যের ৬.৮% নীচে নামবে চলতি অর্থবর্ষে। যখন দু’মাস ধরে চার দফার লকডাউন সয়েছে ভারত।

রয়টার্সের একটি সমীক্ষা বলছে, জানুয়ারি-মার্চের বৃদ্ধির হার দাঁড়াবে ২০১২ সালের পরে সব চেয়ে খারাপ (২.১%)। ক্রিসিলের মতে, ২৮ এপ্রিল তারা যে চলতি অর্থবর্ষে ১.৮% বৃদ্ধির পূর্বাভাস দিয়েছিল, তার পরে অবস্থা আরও খারাপ হয়েছে। তাই পূর্বাভাসে জিডিপি বৃদ্ধির হার এ বার শূন্যের ৫% নীচে নামিয়েছে তারা। সঙ্গে বলেছে, অর্থবর্ষের প্রথম ত্রৈমাসিকে (এপ্রিল-জুন) জিডিপি সরাসরি কমবে ২৫%।

তবে কেন্দ্রের আশ্বাস ছিলো এই ক্ষতি আমরা পূরণ করতে সক্ষম হবো। কিন্তু এখনো বোঝা যাচ্ছেনা চূড়ান্ত মন্দার হার ঠিক কতটা উপরে উঠবে। তাই ভবিষ্যতের দিকেই তাকিয়ে সংশ্লিষ্ট মহল।

Show More

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: