Nation

মদের দোকান খোলাতে কোথাও মানা হচ্ছে না নিয়ম, উল্টে বাজি ফাটানো হচ্ছে কর্নাটকে

প্রশাসনকে বুড়ো আঙ্গুল দেখিয়ে সকাল থেকে ভিড় জমেছে মদের দোকানের সামনে

@ দেবশ্রী : দেশে লকডাউন চলার মধ্যেও বারবার আর্জি জানানো হয়েছিল মদের দোকান খোলার জন্য। শেষমেশ সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে মদের দোকান খোলার অনুমতি দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। শুধু মাত্র কন্টেইমেন্ট জোনে দোকান বন্ধ থাকবে, ‌এমন নির্দেশিকা দেওয়া হয়েছে সরকারের পক্ষ থেকে। সেই ২৪ মার্চ থেকে ৩ মে পর্যন্ত দোকান বন্ধ ছিল। স্বাভাবিক কারণে দোকান খুললে ক্রেতাদের ভিড় যে হবেই, তা বুঝতে পেরেছিলেন অনেকে। কিন্তু মদের দোকান খোলার পর যে চিত্র দেশজুড়ে দেখা যাচ্ছে, তা একেবারে অবাক করে দেওয়া।

দিল্লিতে সোমবার ১৫০ মদের দোকান খোলার কথা। সকালে সেই মতো দোকান খোলার আগেই দেখা যায় অসংখ্য মানুষ লাইন করে দোকানের সামনে দাঁড়িয়ে আছেন। এরই মধ্যে কর্নাটকে দেখা গিয়েছে এক আজব ছবি। কর্ণাটকের সোলার জেলায় মদের দোকান খোলার আনন্দে দেদার বাজি ফাটিয়েছেন এলাকার বাসিন্দারা।

কর্ণাটক, মহারাষ্ট্র সর্বত্র লাইনে কাকভোরেই দাঁড়িয়ে পড়েছেন হাজার হাজার লোক। কিছু দোকান সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার চেষ্টা করলেও সেই সমস্যা মিটছে না। বরং ভিড়, ধাক্কাধাক্কি, কোথাও পুলিশকে লাঠিচার্জ পর্যন্ত করতে হচ্ছে পরিস্থিতি সামাল দিতে। পূর্ব দিল্লিতে দোকান বন্ধ করে রাখার পরেও সকাল সকাল দোকানের সামনে ভিড় করেছিলেন সাধারণ মানুষ। পুলিশ এরপর ঘোষণা করে, কন্টেইমেন্ট জোন হওয়ায় এখানে মদের দোকান খুলবে না। তাও কথা শুনতে চাননি সাধারণ মানুষ। এরপর পরিস্থিতি সামলাতে লাঠি চালাতে হয় পুলিশকে। লখনউ, চিতোর, বেঙ্গালুরু সহ দেশের সর্বত্র এই একই ছবি উঠে আসছে সকাল থেকে। তাহলে এই পরিস্থিতিতে কী আবারও একবার মদের দোকানে তালা ঝোলাবে কেন্দ্রীয় সরকার ?

সরকার পরীক্ষামূলক ভাবে মদের দোকান খোলার সিদ্ধান্ত নেওয়ার পর যা পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে, তাতে সত্যিই যদি সামাজিক দূরত্বের নিয়ম মানা না হয়, তাতে সমস্যা বাড়তে পারে, সেটা বুঝতে পারছেন না সাধারণ মানুষ।

Show More

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: