Education Opinion

মনুষ্যত্ব ভুলে, স্কুলের বাচ্ছাদের নগ্ন করে ক্লাস করাল স্কুল কর্তৃপক্ষ ! যা সভ্য সমাজে অত্যন্ত নিন্দাজনক।

বাড়ির পর, স্কুলের চৌহুদ্দিই পড়ুয়াদের জন্য সব থেকে সুরক্ষিত জায়গা কিন্তু সেই জায়গা ঘিরেই এখন ভয়ের বাসা বেঁধেছে পড়ুয়াদের মধ্যে।

@ দেবশ্রী : ছাত্রছাত্রীদেরকে অনুশাসনে রাখা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তাদেরকে সঠিক পথে নিয়ে যাওয়ার এক গুরু দায়িত্ব বর্তায় শিক্ষক শিক্ষিকাদের উপর। বাড়ির বাইরে স্কুলে শিক্ষক-শিক্ষিকারাই অন্যতম অভিভাবক হয়ে ইথেন। কিন্তু অনুশাসনের নাম বীরভূমের বোলপুরের এক স্কুলে চলছে ঘৃণ্য ঘটনা। থানায় অভিযোগ ওঠে যে বোলপুরের এক স্কুলের পড়ুয়াদের অর্ধ নগ্ন করে ক্লাস করানো হয়। এমন খবর উঠে আসতে, রিপোর্ট তলব করেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্ট্যোপাধ্যায়। এমন নির্লজ্জ্কর ঘটনায়, চূড়ান্ত রূপে ক্ষুব্ধ হন, শিক্ষামন্ত্রী। এক সাংবাদিক বৈঠকে তিনি বলেন যে ঘটনা ঘটেছে তা অত্যন্ত খারাপ। এখন গোটা বিষয়টির তদন্ত করা উচিত। ঘটনাটি সামনে আসার পর, শিশু অধিকার সুরক্ষা কমিশন, তৎপর হয়ে উঠেছেন। গোটা ঘটনাটিকে জানতে চেয়ে বীরভূম জেলা শাসকের কাছে চিঠি পাঠাচ্ছে কমিশন।

একটি বেসরকারি ইংরেজি মাধ্যমের স্কুলের কর্তৃপক্ষের উপর অভিযোগ ওঠে যে, স্কুলের ইউনিফর্ম না পরে আসাতে প্যান্ট খুলিয়ে নগ্ন করে ক্লাস করানো হয় পড়ুয়াদের। শুধু তাই না আরও অভিযোগ আসে যে, নগ্ন অবস্থায় তাদের কে বাড়িতে পাঠানো হয় পড়ুয়াদেরকে। এমন ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পরে, বীরভূমের বোলপুর এলাকায়। এর পরেই স্কুলের প্রিন্সিপালকে সরানোর দাবিতে, বিক্ষোভ জানায় অভিভাবকরা।

অভিযোগ আসে, বোলপুরে একটি ইংরেজি মাধ্যম স্কুলে গতকাল এই ঘটনাটি ঘটে। প্রথম শ্রেণী থেকে শুরু করে, চতুর্থ শ্রেণী পর্যন্ত প্রায় ৩০ জন, পড়ুয়াদেরকে নগ্ন করে ক্লাস করানো হয়। সারাদিন ধরে তাদের ওইভাবে নগ্ন করেই রাখা হয় তারপর সেই অবস্থাতেই বাড়ি পাঠিয়ে দেওয়া হয়। স্কুল কর্তৃপক্ষের দাবি, ওই পড়ুয়াগুলি স্কুলের ইউনিফর্ম পরে আসেনি, ভুল পোশাক পরে এসেছিল। তাই তাদের শাস্তি দেওয়া হয়েছিল।

ঘটনাটি সামনে আসার পরেই বিক্ষোভে ফেটে পড়েন অভিভাবকেরা। গতকাল শান্তিনিকেতন থানায় অভিযোগ জানান তারা স্কুল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে। শেষ পর্যন্ত ঘটনায় সমাপ্তি টানতে ও বিক্ষোভ বন্ধ করতে, শান্তিনিকেতনের থানায় এসে ক্ষমা চান প্রিন্সিপাল। তারপরে আজ সকালে আবারও অভিভাবকরা স্কুলের সামনে বিক্ষোভ জানায় এবং প্রিন্সিপালকে সরানোর দাবি করেন তারা। পরে স্কুল প্ৰতিপক্ষ নিজের ভুল ও স্বীকার করে।

কিন্তু এমন ঘটনা কখনোই কাম্য নয় কোথাও। অত্যন্ত নিন্দাজনক কাজ এটি।

Show More

OpinionTimes

Bangla news online portal.

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: