Nation

মনোমালিন্য চলছে মোদী ও শাহের মধ্যে, হচ্ছে দেশের ক্ষতি, বিতর্কিত মন্তব্য ভুপেশ বাঘেলের।

প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্যের মধ্যে দৃশ্যমান পার্থক্য, আর তার জেরেই সমস্যায় ভুগতে হচ্ছে সাধারণ মানুষকে।

@ দেবশ্রী : হচ্ছে না দেশের কোনোরকম উন্নতি, বদলে আরও বেশি পরিমানে ক্ষতি হচ্ছে। তবে কেন হচ্ছে এমন ? এর পিছনে কী তাহলে মোদী ও শাহের মনোমালিন্য কারন ? হ্যাঁ, প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর মধ্যে তৈরী হয়েছে দূরত্ব। আর বিজেপির এই দুই শীর্ষ নেতার ঝামেলায় আদতে ক্ষতি হচ্ছে দেশের। এমনটাই বিতর্কিত মন্তব্য করে ফেলেছেন ছত্তিশগড়ের মুখ্যমন্ত্রী ভুপেশ বাঘেল। রায়পুরের ইন্ডোর স্টেডিয়ামে একটি সভায় গিয়ে একথা তিনি বলে ফেলেন।

এনসিপি নেত্রী সুপ্রিয়া সুলও বলেছেন, এনআরসি নিয়ে দেশের শাসকরা যেমন পরস্পরবিরোধী মন্তব্য করছেন, তাতে তাঁর আশঙ্কা, মোদি-শাহের কথা বন্ধ। তিনি বলেছেন, তাঁর সামনে সংসদে অমিত শাহ দেশজুড়ে এনআরসি চালু করার কথা বলেছেন। অথচ প্রধানমন্ত্রী জানাচ্ছেন, এনআরসি নিয়ে কোনো কথাই হয়নি। মুখ্যমন্ত্রী ভুপেশ বাঘেলের বক্তব্য, এনআরসি চালু করা নিয়ে প্রধানমন্ত্রী এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্যে আকাশ-পাতাল এর ফারাক দেখা যাচ্ছে। কে সত্যি বলছেন আর কে মিথ্যে বলছেন, তা বোঝা দায় হয়ে যাচ্ছে ক্রমশ। আর এই ইস্যুর কারণে দেশের অনেক গুরুত্বপূর্ণ সমস্যা চাপা পড়ে যাচ্ছে। জিনিসপত্রের দাম বেড়ে চলেছে পণ্য বাজারে। নেই চাকরির দেখা, বেকার বসে রয়েছে শিক্ষিতরা।

ফলে আদতে এই ক্ষতির শিকার হচ্ছেন সাধারণ মানুষ। তাঁর বক্তব্য, ছত্তিশগড়ের বিরাটসংখ্যক মানুষ দারিদ্রসীমার নীচে বাস করেন। তাঁদের কাছে কোন জমি নেই, বাবা-মা নিরক্ষর। কখনও স্কুল যাননি যাঁরা, তাঁরা কীভাবে প্রমাণ করবেন বাবা মায়ের জন্মতারিখ? প্রমাণ করতে না পারলে ভারতে থাকার জন্য আবেদন করতে বলবে সরকার। অসমে এনআরসি হয়েছে, তাতে সেখানকার মানুষই সমস্যায় পড়েছেন। এই সব কিছু নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন বাঘেল। তাহলে কী দেশের অবনতির কারন হিসাবে মোদী ও শাহ কে দায়ী করছেন ছত্তিশগড়ের মুখ্যমন্ত্রী ?

Tags
Show More

Related Articles

Back to top button
Close
Close
%d bloggers like this: