Entertainment

মহারাজা তোমারে সেলাম

আজ ২রা মে , সুকুমার পুত্র সত্যজিতের ৯৮-তম জন্মদিন

কাল ছিল ‘মে ডে’ , সমগ্র সত্যজিৎ প্রেমী মানুষের কাছে আজ ‘রে ডে’। ভারতীয় চলচ্চিত্র তথা শিল্প জগতে সত্যজিৎ রায় এক উজ্জ্বল নক্ষত্রের নাম। বিশিষ্ট শিশু সাহিত্যিক উপেন্দ্র কিশোর রায়চৌধুরীর দৌহিত্র ও বিখ্যাত সাহিত্যিক হাসির সম্রাট  সুকুমার রায়ের পুত্র সত্যজিতের জন্ম ১৯২১ সালের ২রা মে। জন্মের ৩ বছরের মধ্যেই সত্যজিৎ পিতা সুকুমার কে হারান। মা সুপ্রভা দেবী খুব কষ্ট করে, তাকে বড় করে তোলেন। শিক্ষাজীবনের  শুরুতে তিনি বালিগঞ্জ গভর্নমেন্ট ও পরবর্তী কালে অর্থনীতি নিয়ে প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশুনা করেন। পরবর্তীকালে তিনি নিজের অনিচ্ছায়, শুধুমাত্র মায়ের কথা রাখতে এবং রবীন্দ্রনাথের প্রতি শ্রদ্ধায় শান্তিনিকেতনে যান এবং ওইখানে পাঁচ বছরের শিক্ষা সম্পূর্ণ না করে ডি.জে. কিমার নামে একটি ব্রিটিশ বিজ্ঞাপন সংস্থার হয়ে  মাত্র  ৮০ টাকা মাইনের “জুনিয়ার ভিজুয়ালাইজার” হিসেবে নিযুক্ত হন এবং  ওই বছরেই তিনি ডি.কে. গুপ্তার সিগনেট প্রেসে প্রচ্ছদ আঁকার জন্য নিযুক্ত হন। সিগনেট প্রেসে সত্যজিতের আঁকা প্রচ্ছদ গুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো জিম করবেটের ‘ম্যানিটার্স অফ কুমায়ুন’ ও জহরলাল নেহেরুর ‘ডিসকভারি অফ ইন্ডিয়া’। বিভূতিভূষণের লেখা তাঁকে ভীষণ ভাবে আকৃষ্ট করতো এবং তার লেখা কালজয়ী উপন্যাস ‘পথের পাঁচালি’ নিয়ে সত্যজিৎ তাঁর প্রথম ছবি নির্মাণ করেন। সেইসময় তাঁর সহধর্মিনী বিজয়া রায় তাঁকে সাহায্য করেন । সত্যজিৎ ছিলেন বহুমুখী প্রতিভার অধিকারী , তিনি একাধারে ছিলেন সাহিত্যিক, গীতিকার, সুরকার তথা চলচ্চিত্র নির্মাতা। তাঁর সৃষ্ট চরিত্রের মধ্যে ফেলুদা , প্রফেসর শঙ্কু সমস্ত সাহিত্য প্রেমীদের কাছে আজও ভীষণ জনপ্রিয়। তিনিই একমাত্র ভারতীয় চিত্র পরিচালক যিনি অস্কার লাভ করেন। তার উল্লেখযোগ্য ছবিগুলির মধ্যে ‘পথের পাঁচালি’, ‘ঘরেবাইরে’, ‘শাখাপ্রশাখা’, ‘গণশত্রু’, ‘নায়ক’, ‘জলসাঘর’, ‘সতরঞ্জ কি খিলাড়ি’, ‘নায়ক’ ইত্যাদি। ১৯৪৭ সালে তিনি চিদানন্দ দাসগুপ্ত ও অন্ন্যান্য দের সাথে মিলে কলকাতা ফিল্ম সোসাইটি নির্মান করেন। ১৯৯২ সালের ২৩শে এপ্রিল তাঁর জীবনাবসান হয়। সমগ্র বাঙালি জাতি ও ভারতবাসীর কাছে সত্যজিৎ রায় অহংকারের এক নাম। তাঁর ৯৮-তম জন্মদিবসে ওপিনিয়ন টাইমস-এর পক্ষ থেকে তাঁর প্রতি রইলো সশ্রদ্ধ প্রণাম।

Show More

Related Articles

Back to top button
Close
Close
%d bloggers like this: