Analysis

মুকুল কূলে গোপন বৈঠক : নজরে মমতা , ভেঙে যেতে পারে কি বিধান সভা ? বিপদে তৃণমূল পর্ব -২

'১৮ /২২ হতেই শুরু , হেরে যাওয়া নেতা থেকে রাজ্যের মন্ত্রী , জিতে গড় রক্ষা করা সিন্ডিকেট থেকে এলাকার কাউন্সিলর সবাই যেন ডাউন মেমরি লেনের খোঁজে '

ওপিনিয়ন টাইমস ২১ তারিখে একটি বিশেষ গোপন সার্ভে চালিয়েছিল যে “২৩ শে মে ফলাফল দেখে সিদ্ধান্ত : ভেঙে যেতে পারে কি বিধান সভা ? বিপদে তৃণমূল-
কালীঘাটে জোর গুঞ্জন দল ছাড়তে পারেন ৬৭ জন বিধায়ক , ৭ জন মন্ত্রী , ১৯ জন কাউন্সিলর ২ জন নেতা ৫ জন ছাত্র নেতা” শীর্ষক লেখা বের করার পর আমাদের দফতরে অনেক ফোন এসেছিলো , মৃদু হুমকীতে।

২৩ শে মে ফলাফল প্রকাশ হওয়ার পর এই গুঞ্জন আরো জোরালো হয়েছে প্রতি মুহূর্তে , অমিত শাহ থেকে মোদী , দিলীপ ঘোষ থেকে মুকুল টার্গেট তৃণমূলের ভোট ম্যানেজার দের নিজের দলে তুলে নেওয়া, যাতে আগামী পৌর সভা ও তার পর বিধান সভা তে পূর্ণাঙ্গ সফলতা আসে।
কি ভাবে চলছে এই কাজ মুকুল বাহিনী দেখে নিন এক নজরে

মুকুল নজরে ১ ) : কলকাতার ছড়িয়ে রয়েছে বিভিন্ন স্তরের মানুষ যারা ছিলেন একসময়কার বাম , তৃণমূল ও কংগ্রেসের ভিতরের লোক, যারা খোঁজ রাখেন ভালো সংগঠকদের.
মুকুল নজরে ২) কাদের হাতে কত মানুষ আছে বা বিশ্বাসযোগ্য, ভরসাযোগ্য মানুষ আছে অঞ্চল ভিত্তিক।
মুকুল নজরে ৩) কাদের হাতে অঞ্চলের বাহুবলীদের তালিকা।
মুকুল নজরে ৪) প্রোমোটার, সিন্ডিকেট ও কন্ট্রাক্টার
মুকুল নজরে ৫) অটোর নেতা কলকাতা জুড়ে বিভিন্ন রুট ঘুরে
মুকুল নজরে ৬) তৃণমূলে অপমানিত নেতাদের সাথে ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ পুনরায় স্থাপন।
মুকুল নজরে ৭) সাংবাদিক দের এক অংশ
মুকুল নজরে ৮) কলকাতার দূর্গা পুজো ক্লাব ( যারা বিভিন্ন পুরস্কার পাবার ক্ষেত্রে লড়াই করে )
মুকুল নজরে ৯) সিভিক ভলেন্টিয়ার , ১০০ দিনের কাজ , কর্পোরেশনের কর্মী ও রোড কন্ট্রাক্টারী যারা করেন তাদের একটা বড় অংশ
মুকুল নজরে ১০) কলকাতায় থাকে অথচ সারা রাজ্যে বিগত দিনে বিভিন্ন রাজনৈতিক আন্দোলনে সামাজিক মুখ হিসেবে যারা গেছেন তাদের একটা বড় অংশ
মুকুল নজরে ১১) সিপিআইএম ও কংগ্রেসের প্রাধান্য না পাওয়া নেতারা রেয়েছেন এই তালিকায়
মুকুল নজরে ১২) বিক্ষুব্ধ নকশাল নেতাদের সাথে কথা শুরু হয়েছে
মুকুল নজরে ১৩) বিভিন্ন দলের মহিলা সংঘঠকদের সাথে যোগ যোগ করছেন
মুকুল নজরে ১৪) অঞ্চল ভিত্তিক আইনজীবী দের যুক্ত করা
মুকুল নজরে ১৫) কলেজ ভিত্তিক ছাত্র সংগঠক দেড় যুক্ত করা।

আর এই দখলদারির রাজনীতির মূল ইঞ্জিনিয়ার মুকুল রায় তার সম্ভবত নজর কলকাতার ১৮০ টি ক্লাব যা ১০৯ টি ওয়ার্ড এ আছে। যা চিন্তার ভাঁজ ফেলেছে অরূপ ,ববি , অতীন ,মদন ,পার্থ যারা ক্লাব এর ক্ষমতা ধরে রেখেছেন।

জেলার ফর্মগুলা একটু আলাদা : পৌর সভা ও পঞ্চায়েতের জন্য পরিকল্পনা একটু আলাদা , পৌরসভার ক্ষেত্রে ঠিকাদারদের তালিকা তৈরী , বিভিন্ন ব্যবসায়ী সংগঠন এর সাথে যোগাযোগ, ট্রেড ইউনিয়ন গুলির সাথে গাঁটছড়া বাধা, সঙ্গে রয়েছে ক্লাব সংগঠনও। চলছে সিন্ডিকেটের খোঁজ যারা এখন প্রায় ক্ষুব্ধ তারা আগে যুক্ত হচ্ছে বিজেপিতে আর যারা দুধে -ভাতে আছে তারা একটু ভাবনার মধ্যে আছে।

Show More

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: