Analysis

মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠকে কি বার্তা দিলেন প্রধানমন্ত্রী,দেখে নিন…

আর্থিক উন্নয়নের ধারা বজায় রাখার আশ্বাস দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী

প্রেরনা দত্তঃ তৃতীয় দফার লকডাউন শেষ হচ্ছে ১৭ মে। তারপর কী হবে, তা নিয়েই সোমবার বিভিন্ন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠক করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। লকডাউন ঘোষণার পর এই নিয়ে পঞ্চমবার মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে ভিডিও-কনফারেন্সের মাধ্যমে বৈঠক করলেন প্রধানমন্ত্রী (PM-CMs video meet)। চলতি লকডাউনের ভবিষ্যৎ কী, সেই প্রশ্নের জবাব পেতে এদিনের বৈঠক। গ্রামে যেন করোনা-সংক্রমণ না ছড়ায়’,মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠকে বার্তা প্রধানমন্ত্রীর।করোনার বিরুদ্ধে একসঙ্গে লড়াইয়ের আহ্বান। তিনি বলেছেন, ‘ভারতের লড়াইয়ের সাফল্য মেনেছে গোটা বিশ্ব।’ এই লড়াইয়ে সমস্ত রাজ্য সরকারগুলির প্রচেষ্টার প্রশংসা করেছেন প্রধানমন্ত্রী।

এদিকে, মঙ্গলবার থেকে নিয়ন্ত্রিত যাত্রী ট্রেন পরিষেবা চালু করছে ভারতীয় রেল। দিল্লি থেকে দেশের অন্য শহরগুলোতে যাতায়াত করবে মোট ১৫ জোড়া ট্রেন। আর্থিক উন্নয়নের ধারা বজায় রাখার আশ্বাস দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে পঞ্চম বৈঠকে প্রধানমন্ত্রীর বার্তা, ‘ধীরে হলেও, কিছু অংশে ফিরছে অর্থনীতির হাল।সংক্রমণ ঠেকাতে বজায় রাখতে হবে সামাজিক দূরত্ব।’ বৈঠকে ৩১ মে পর্যন্ত উড়ান বন্ধ রাখার অনুরোধ তামিলনাড়ুর।

দিনের বৈঠকে মোদী বলেন যে, ভৌগলিকভাবে যে করোনা ছড়িয়ে পড়েছে তা প্রমাণিত। ফলে জেলাস্তর থেকে কীভাবে এই সমস্যার মোকাবিলা করা যায়,তার ওপর জোর দিতে বলেছেন মোদী। দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালের পরামর্শ, “ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানগুলো খুলে দেওয়া উচিত। দিল্লির একমাত্র কন্টেইনমেন্ট জোন ছাড়া বাকি এলাকায় চলুক ব্যবসা-বানিজ্য।” চলতি মাসে ট্রেন কিংবা প্লেনের মতো গণপরিবহণ চালু না করতে প্রধানমন্ত্রীকে আর্জি জানান তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী। এদিনের বৈঠকে বেশিরভাগ রাজ্য পরিযায়ীদের দুর্দশার প্রসঙ্গ বৈঠকে তুলে ধরেছে।

কেন্দ্রের তরফে একটি চিঠিতে রাজ্যগুলিকে পরিযায়ী শ্রমিকদের নিয়ে বড়সড় বার্তা দেওয়া হয় মোদীর বৈঠক চলাকালীন। পরিযায়ী শ্রমিকদের নিয়ে রাজ্যগুলিকে ব্যবস্থা নিতে হবে। পরিযায়ী শ্রমিকরা যাতে পায়ে হেঁটে পথ চলতে না শুরু করেন, তার জন্য রাজ্য প্রশাসনকে বোঝাতে হবে।

Show More

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: