Analysis

রাজ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ১৫৩ জন ,এখনও পর্যন্ত একদিনে সর্বোচ্চ

গত ২৪ ঘন্টায় বেড়েছে মৃতের সংখ্যাও। প্রায় ১৪জনের মৃত্যু হয়েছে।

প্রেরনা দত্তঃ গত চারদিন ধরেই রাজ্যে নতুন করে আক্রান্তের সংখ্যা ছিল কখনও একশোর কাছাকাছি, কখনও তার থেকে বেশি। রবিবার স্বাস্থ্য দফতরের বুলেটিন অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ১৫৩ জন যা এখনও পর্যন্ত একদিনে সর্বোচ্চ। অন্যদিকে গত ২৪ ঘন্টায় বেড়েছে মৃতের সংখ্যাও। প্রায় ১৪জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানাচ্ছে স্বাস্থ্য দফতরের বুলেটিন। তবে গত ২৪ ঘন্টায় যে রিপোর্ট সামনে এসেছে তাতে সত্যিই চিন্তার ভাঁজ কপালে পড়েছে স্বাস্থ্য দফতরের আধিকারিকদের।
নতুন যারা করোনায় আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন তারা কলকাতা, হাওড়া, উত্তর চব্বিশ পরগনা ও হুগলি জেলার বাসিন্দা।

তৃতীয় দফার লকডাউনের পর ধারণা করা হচ্ছিল করোনার সংক্রমণ কমবে কলকাতায়। কিন্তু তেমনটা হয়নি বরং দিনে দিনে কলকাতায় করোনা তার প্রাণঘাতী সংক্রমণ আরও বাড়িয়েছে। এই সময়ে বেড়েছে আক্রান্তের সংখ্যা এবং সংক্রমিত এলাকা। এখন কার্যত অবরুদ্ধ হয়ে পড়েছে কলকাতা শহর।

স্বাস্থ্য দফতরের আশঙ্কা বাড়িয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় হুগলির সক্রিয় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৫১ থেকে গত ২৪ ঘণ্টায় এক লাফে ৪৭ বেড়ে হয়েছে ৯৮। তুলনায় হাওড়া, কলকাতা এবং উত্তর ২৪ পরগনায় নতুন করে আক্রান্ত হওয়ার হার গত কয়েকদিনের তুলনায় খুব একটা বৃদ্ধি পায়নি বলেই জানাচ্ছে স্বাস্থ্য দফতর।

তবে হুগলি জেলা নিয়ে যথেষ্ট চিন্তার ভাঁজ পড়েছে। অন্যদিকে মালদহেও বেড়েছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। সবাই আজমেড় থেকে ফেরা বলে জানা যাচ্ছে। সূত্রে খবর, মুর্শিদাবাদেও বেশ কয়েকজনের শরীরেও মিলেছে করোনার সংক্রমণ।

স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে খবর, চন্দননগর লাগোয়া একটি অতি ঘনবসতি এলাকায় গত কয়েকদিনে পর পর কয়েকটি সংক্রমণের ঘটনা ঘটেছে বলে জানা গিয়েছে। স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে খবর, কলকাতায় শনিবার রাত থেকে রবিবার সকাল পর্যন্ত কোভিড আক্রান্ত যাঁদের মৃত্যু হয়েছে তাঁদের মধ্যে রয়েছেন প্রখ্যাত ঐতিহাসিক হরি বাসুদেবন এবং আলিপুর আদালতের আইনজীবী গোবিন্দ পাল। অন্যদিকে স্বাস্থ্যকর্মী এবং পুলিশ বাহিনীতে ফের সংক্রমণের ঘটনা ঘটেছে বলে জানা গিয়েছে স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে। মানিকতলা থানার এক আধিকারিকের দেহে কোভিডের জীবাণু পাওয়া গিয়েছে।

তাই সব থেকে বেশি আক্রান্ত ১১টি জেলাকে রাখা হয়েছে রেড জোনে। এই ১১টি জেলা হলো কলকাতা, উত্তর চব্বিশ পরগনা, হাওড়া, পূর্ব মেদিনীপুর, দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা, জলপাইগুড়ি, কালিম্পং, দার্জিলিং, পশ্চিম মেদিনীপুর, মালদহ ও বীরভূম। সামান্য আক্রান্ত পাঁচ জেলা রয়েছে কমলা জোনে।

Show More

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: