Health

রাজ্যে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্য়া বেড়ে হয়েছে ৪ ৮১৩, স্বস্তি দিচ্ছে সুস্থ হয়ে ওঠার সংখ্যা

মোট মৃতের সংখ্যা ছাড়াল ৩০০, এর মধ্যে শুধু করোনায় ২৩০

প্রেরনা দত্তঃ গতকাল অবধি রাজ্যে করোনা ভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ২৫৭৩ জন। নতুন করে একদিনে ২৭৭ জন আক্রান্ত হওয়ায় যা শুক্রবার বেড়ে হয়েছে ২৭৩৬ জন। এ রাজ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় ৭ জন করোনা আক্রান্তের মৃত্যু হয়েছে। যার ফলে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হল ২৭০, যার মধ্যে কোমর্বিডিটির কারণে মৃত ৭২ জন।

সক্রিয় আক্রান্তের সংখ্যা ২,৭৩৬ জন । গত ২৪ ঘন্টায় যে ৭ জনের মৃত্যু হয়েছে, তাদের মধ্যে কলকাতার ২জন, হুগলির ২জন, উত্তর ২৪ পরগণার ১ জন, দক্ষিণ 24 পরগনা ১ জন এবং নদীয়ার ১ জন।শুধু কলকাতায় নতুন করে আক্রান্তের সংখ্যা ৭১ জন। মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ১৯৭৩ জনে। শহরে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ১৯৬ জনে। কো মর্বিডিটির কারণে মৃত্যু হয়েছে ৫২ জনের। তবে গত ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়েছেন ৪২ জন। এই পর্যন্ত কলকাতায় ৮২৯ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরছেন। বাংলায় নতুন করে সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফিরেছেন আরও ১০৭ জন।

বৃহস্পতিবার রাজ্যের স্বাস্থ্যদপ্তরের দেওয়া করোনা পরিসংখ্যান চিন্তার ভাঁজ ফেলেছিল বাঙালির কপালে। শুক্রবার সেই সংখ্যাটা তুলনামূলক কম। বরং করোনা মুক্ত হয়ে ওঠার সংখ্যাটা খানিকটা হলেও স্বস্তি দিচ্ছে।গত ২৪ ঘণ্টায় ১০৭ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্যদপ্তর। মোট সুস্থ হওয়ার সংখ্যা ১৭৭৫। শুক্রবার পর্যন্ত মোট নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ১,৮৫,০৫১ জনের। গতকালের তুলনায় নমুনা পরীক্ষার সংখ্যাও সাময়িক বেড়েছ।

আগামী ১ জুন থেকে রাজ্যে বিভিন্ন ক্ষেত্রে ছাড় ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিনই তিনি জানান, আগামী মাসের পয়লা তারিখ থেকে ধর্মীয় স্থান, কর্মক্ষেত্র খুলে দেওয়া হবে। ৮ জুন থেকে আবার সরকারি-বেসরকারি সংস্থা ১০০ শতাংশ কর্মী নিয়ে কাজও করতে পারবে। কিন্তু একই সঙ্গে হটস্পট এলাকা থেকে রাজ্যে পরিযায়ী শ্রমিকদের ফেরানো নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন মমতা। তাঁর দাবি, যে রাজ্যে সংক্রমণের হার বেশি, সেখান থেকে শ্রমিকরা ফেরায় এ রাজ্যে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। তাই প্রশ্ন উঠছে, পরিযায়ী শ্রমিকদের ফেরার পর থেকে সংক্রমণের হার উল্লেখযোগ্যভাবে বাড়া সত্ত্বেও কেন আগামী মাস থেকে একাধিক ক্ষেত্রে ছাড় ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী? এই শিথিলতাই কাল হয়ে দাঁড়াবে না তো?

করোনা সংক্রমণে নয়া রেকর্ড গড়ল ভারত। গত ২৪ ঘন্টায় দেশে করোনা পজিটিভ ৭,৪৬৬ জন। চতুর্থ পর্যায়ের লকডাউন শেষের দিকে। সংক্রমণ বৃদ্ধির এই হারই এখন উদ্বেগ বাড়াচ্ছে। স্বাস্থ্যমন্ত্রকের পরিসংখ্যান অনুসারে দেশে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১,৬৫,৭৯৯ জন। করোনাকে হারিয়ে সুস্থ হয়ে ওঠার সংখ্যা ৭১,১০৬। দেশে ভাইরাসে মোট মৃত্যু হয়েছে ৪,৭০৬ জনের।

Show More

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: