Big Story

রামকৃষ্ণ পরমহংসের ডেথ সার্টিফিকেটে বিভ্রান্তি ১৫ই আগস্ট না ১৬ই আগস্ট : বলবে কলকাতা কর্পোরেশন

বেলুড় মঠ কর্তৃপক্ষের হাতে এই সার্টিফিকেট তুলে দেবে কলকাতা পৌরসভা , তবে দিনক্ষণ এখনো ঠিক হয় নি

বহু কাল ধরেই অধরা ছিল বেলুড় মঠ কর্তৃপক্ষের কাছে যে রামকৃষ্ণ পরমহংসের ডেথ সার্টিফিকেট কোথায়। কিন্তু সেই সময় কলকাতার শ্যাম পুর অঞ্চলে তিনি ছিলেন , বেলুড় মঠ কর্তৃপক্ষের কাছে সব থাকলেও এই সার্টিফিকেট ছিল অধরা। অনেক বার আবেদন জানানোর পর কলকাতা পৌরসভার রেকর্ড ডিপার্টমেন্টের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এবার পেতে চলেছেন রামকৃষ্ণ পরমহংসের ডেথ সার্টিফিকেট বেলুড় মঠ কর্তৃপক্ষ।

১৮৮৫ সালের প্রথমদিকে তিনি ক্লার্জিম্যান’স থ্রোট রোগে আক্রান্ত হন; পরে এই রোগ গলার ক্যান্সারের আকার ধারণ করে। এই সময় তাকে কলকাতার শ্যামপুকুর অঞ্চলে নিয়ে আসা হয়। সেই সময় বিশিষ্ট চিকিৎসক মহেন্দ্রলাল সরকার তাঁর চিকিৎসায় নিযুক্ত হন। কাশীপুরের এক বিরাট বাগানবাড়িতে তাকে নিয়ে আসা হয় অবস্থা সংকটজনক হলে ১১ ডিসেম্বর, ১৮৮৫ তারিখে।

সারদা দেবী ও শিষ্যগণ তাঁর সেবাযত্ন করতেন রামকৃষ্ণ পরমহংসের। তাঁকে কথা না বলার কঠোর নির্দেশ দিয়েছিলেন চিকিৎসকগণ। কিন্তু কে কার কথা শোনে সেই নির্দেশ অমান্য করে তিনি অভ্যাগতদের সঙ্গে ধর্মালাপ চালিয়ে যান।শোনা যায় মৃত্যুর পূর্বে বিবেকানন্দকে তিনি বলেছিলেন “আজ তোকে যথাসর্বস্ব দিয়ে ফকির হয়েছি। এই শক্তির সাহায্যে তুই জগতের অশেষ কল্যাণ করতে পারবি। কাজ শেষ হলে আবার স্বস্থানে ফিরে যাবি।”

তিনি ১৬ অগস্ট, ১৮৮৬ এ তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হয় এবং অতি প্রত্যুষে পরলোকগমন করেন। কিন্তু বিতর্ক যে ছাড়ে না , কবে শেষ নিস্বাশ ত্যাগ করেন রামকৃষ্ণ পরমহংস। কোলকাতাতে কর্পোরেশনের রেকর্ডে আছে ১৮৮৬ সালের ১৫ অগস্ট ৯৫০ নম্বর এন্ট্রি কিন্তু বেলুড়ে রয়েছে ১৬ আগস্ট , তবে উইকলিপিডিয়াতে বলা হয়েছে ১৬ অগস্ট, ১৮৮৬ অতি প্রত্যুষে পরলোকগমন করেন উল্লেখ আছে। প্রশ্ন কেন এই বিতর্ক বয়ে চলেছে যুগের পর যুগ। কবে সঠিক তথ্য জানতে পারবেন অগণিত ভক্তকুল তার অপেক্ষায়।

Show More

OpinionTimes

Bangla news online portal.

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: