Nation

রেল পরিষেবা আপনার সুবিধার্থেই চালু হচ্ছে কিন্তু সচেতনতা আপনাকেই মানতে হবে

স্ক্রিনিং এ যে সকল যাত্রীদের ক্ষেত্রে সবুজ সঙ্কেত মিলবে তাদের ছাড় দেওয়া হবে

পল্লবী : দেশ জুড়ে ক্রমশ বেড়েই চলেছে সংক্রমণ তার মধ্যেই চালু হলো রেল পরিষেবা। তবে ভারতীয় রেলের তরফে জানানো হয়েছে ধীরে ধীরে চালু করা হবে রেল পরিষেবা। আর যাতে প্রত্যেকজন যাত্রী সুস্থভাবে তাদের যাত্রা করতে পারে তার জন্য বেশ কিছু নয়া নিয়ম আনতে চলেছে মানুষের উপরে রেল তরফ। জানানো হয়েছে ১৫ টি রাজধানী রুটের ভাড়া এবার থেকে প্রায় সুপার ফাস্ট ট্রেনের সমান হবে। পাশপাশি জানানো হয়েছে সকল যাত্রীদের মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক। এছাড়াও ট্রেনে ওঠার সময়ে যাত্রীদের স্ক্রিনিং করা হবে। স্ক্রিনিং এ যে সকল যাত্রীদের ক্ষেত্রে সবুজ সঙ্কেত মিলবে তাদের ছাড় দেওয়া হবে। জানানো হয়েছে রেলের তরফে অফলাইন বুকিং পরিষেবা দ্রুত শুরু হবে। তবে তা কবে থেকে এখনও জানানো হয়নি। তবে অনলাইনে আইআরসিটিসি ওয়েবসাইট এবং মোবাইল অ্যাপ থেকে যাত্রীরা টিকিট কাটতে পারবেন।

দালাল মারফত টিকিট বুকিং করা যাবে না বলেও জানানো হয়েছে। এছাড়া স্টেশনের টিকিট কাউন্টার বন্ধ থাকবে। পাশপাশি কোন যাত্রীদের প্ল্যাটফর্ম টিকিট দেওয়া হবে না বলেও জানা গিয়েছে। অর্থাত্‍ আগে যেখানে পরিচিতরা অন্য জায়গায় গেলে যেখানে পরিবারের সকল সদস্যরা একসঙ্গে স্টেশনে এসে বিদায় জানাত সেই রীতি পরিবর্তন করতেই হবে। স্টেশনে কেবলমাত্র বৈধ টিকিট নিয়ে যাত্রীরাই ঢুকতে পারবেন। অন্য কেউ নয়। এমনকি পরিবারের সদস্যরাও নয়। পাশপাশি স্পষ্টভাবে বলে দেওয়া হয়েছে ট্রেনের যাত্রীদের ব্ল্যাঙ্কেট না দেওয়ার সমুহ সম্ভবনা রয়েছে। কারণ এই ব্ল্যাঙ্কেট থেকে ভাইরাস ছড়িয়ে পরার সম্ভবনা রয়েছে। তাই এই সুবিধা বন্ধ করা হবে বলে মনে করা হচ্ছে। এছাড়াও জানানো হয়েছে এসি কোচের ক্ষেত্রে তাপমাত্রা খুব বেশি কমানো হবে না।

এছাড়াও কোচের মধ্যে যাতে স্বাভাবিক ভাবে বাতাস চলাচল করতে পারে সেই বিষয়টির উপরে নজর রাখা হবে। ইতিমধ্যে বিভিন্ন রাজ্য থেকে আটকে পরা শ্রমিকদের ফিরিয়ে আনার জন্য একাধিক রাজ্য থেকে ট্রেন ছাড়া হয়েছে। তবে সেই সকল ট্রেনে ওই শ্রমিকদের নির্দিষ্ট নিয়ম মেনেই আসতে হবে বলে জানানো হয়েছে। আর তাদের প্রত্যেকের শারীরিক পরীক্ষা করা হবে বলেও জানানো হয়েছে। অর্থাত্‍ লক ডাউন পরবর্তী ট্রেন যাত্রা যে সম্পূর্ণ ভাবে পরিবর্তিত হতে চলেছে তা পরিস্কার।

দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে মানুষ তাদের গন্তব্যে পৌঁছতে পারেন একমাত্র রেল পরিষেবার কারণেই। তাই এবার চালু করা হলো কয়েকটি হাতে গোনা পরিষেবা। কিন্তু তাতে কোনোভাবে সংক্রমণ যাতে না ছড়াতে পারে সেই দিকে কড়া নজর রেখেছে রেল কতৃপক্ষ। অন্যদিকে যাত্রীদের তাদের নিজস্ব সচেতনতা বজায় রাখা প্রয়োজন।

Show More

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: