West Bengal

লকডাউনের মাঝেই সাবওয়ের কাজকে ঘিরে দ্বন্দ্ব তৃণমূল বিজেপির

করোনা আবহেও থামছে না রাজনৈতিক সংঘাত

@ দেবশ্রী : এমন কঠিন পরিস্থিতিতেও রাজনৈতিক সংঘাত কিন্তু অব্যাহত। তার কোনো বিরতি নেই। এবার সাবওয়ে তৈরি নিয়ে প্রকাশ্যে চলে এল বিজেপি-তৃণমূল দ্বন্ধ। রবিবার মালদহের মালঞ্চ পল্লি এলাকায় একটি সাবওয়ে তৈরির কাজের সূচনা করতে গিয়েছিলেন উত্তর মালদহের বিজেপি সাংসদ খগেন মুর্মু। আর সেখানে গিয়েই স্থানীয় তৃণমূল কাউন্সিলরের সঙ্গে বাকবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েন তিনি।

ঘটনাটি ঘটেছে রবিবার মালদহ মালঞ্চ পল্লী এলাকার তিন নম্বর ওয়ার্ডে। দুই শিবিরের সংঘাতের খবর পৌঁছতেই ঘটনাস্থলে উপস্থিত জয় রেল পুলিশ ও ইংরেজবাজার থানার পুলিশ।

সূত্রের খবর, এদিন উত্তর মালদহের বিজেপি সাংসদ, মালঞ্চ পল্লী সেতুর কাজের সূচনা করতে গিয়ছিলেন। সেই সময় শুরু হয় স্থানীয় কাউন্সিলর পরিতোষ চৌধুরীর সাথে বাকবিতণ্ডা। সাবওয়ে তৈরীর ফ্লেক্স ছিঁড়ে দিয়েছে তৃণমূল কর্মী সমর্থকরা বলে অভিযোগ জানিয়েছেন ওই বিজেপি সাংসদ।

ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় ইংরেজবাজার থানার পুলিশ ও রেল পুলিশ। সেখানে গিয়ে তাঁরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। ঘটনায় বিজেপি জেলা সভাপতি গোবিন্দ চন্দ্র মন্ডলকে হেনস্থা করা হয়েছে বলে বিজেপির অভিযোগ।

এদিকে, উত্তর মালদহের সংসদ খগেন মুর্মু বলেন, ‘মালঞ্চ পল্লী সাবওয়ে তৈরি স্থানীয় মানুষের দীর্ঘদিনের দাবি। আমরা চাইছি না কোনও রাজনীতি করতে। আমরা চাইছি কেবল কাজ হোক। যারা রাজনীতি করার জন্যই শুধুমাত্র রাজনীতি করে। এখানে যখন কাজ হচ্ছে তখন কাজে বাধা দেওয়া হচ্ছে। আমার এখানে ব্যানার দিয়েছি, আমি একজন সাংসদ এখানে ব্যানার দিতেই পারি। আমার ব্যানার ছিঁড়ে দিয়েছে ওরা। কে অধিকার দিয়েছে আমার ব্যানার ছিঁড়ে দেওয়ার।’

এর পাল্টা জবাবে তিন নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পরিতোষ চৌধুরী বলেন, ‘মিথ্যা ও ভিত্তিহীন অভিযোগ। ধাক্কা ধাক্কির কোনও বিষয় নয়। এখানে লকডাউনটা মানতে হবে। ওরা এসছে লকডাউনের মধ্যেই। বাইরে থেকে লোক আসছে মানে এখানে রাজনীতি করছে।’

Show More

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: