Nation

শ্রমিক স্পেশাল ট্রেন থামবে না গোয়াতে, করোনা সংক্ৰমন রুখতেই এমন সিদ্ধান্ত

করোনা মুক্ত গোয়া ঘোষণার পরেই নতুন করে ১৮ জন আক্রান্ত, চিন্তা বাড়াচ্ছে প্রশাসনের

@ দেবশ্রী : ক্রমশ বাড়ছে করোনা সংক্রমণের পরিমান দেশে। এই মুহূর্তে করোনার সংক্রমণ রুখতে নয়া নির্দেশ গোয়ার মুখ্যমন্ত্রীর। গতকাল রবিবার গোয়ার মুখ্যমন্ত্রী প্রমোদ সাওয়ান্ত ঘোষণা করেন, গোয়ায় থামবে না দিল্লি থেকে আসা শ্রমিক স্পেশ্যাল ট্রেন। কোঙ্কন রেল কর্তৃপক্ষকে গোয়ায় শ্রমিক স্পেশ্যাল ট্রেন না থামানোর জন্য আগেই অনুরোধ জানিয়েছিলেন তিনি।

গত সপ্তাহের শুরুতেই গোয়ার মুখ্যমন্ত্রী প্রমোদ সাওয়ান্ত ঘোষণা করেছিলেন যে গোয়া করোনা সংক্রমণ মুক্ত। পর্যটকদের আমন্ত্রণও জানিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু মুহূর্তের মধ্যেই পাল্টে গেল সেই চিত্র। মাত্র দুদিনের মধ্যেই মুম্বইতে আটকে থাকা কয়েকজন ব্যক্তি গোয়ায় যান। তারপরেই ফের সংক্রমণ দেখা দেয় সেখানে। সপ্তাহের শেষের দিকে প্রায় ১৮ জনের শরীরে নতুন করে মেলে করোনা ভাইরাসের সন্ধান। ফলে নতুন করে চিন্তার ভাঁজ পড়ে গোয়ার মুখ্যমন্ত্রীর কপালে। তাই দিল্লি-তিরুঅনন্তপুরম রাজধানী এক্সপ্রেসটি যাতে গোয়ায় না থামে সেই ব্যবস্থা করতেই উদ্যত হন প্রমোদ সাওয়ান্ত।

কোঙ্কন রেলওয়য়ে কর্তৃপক্ষকে তিনি অনুরোধ করেন যাতে দিল্লি-তিরুঅনন্তপুরম শ্রমিক স্পেশ্যাল ট্রেনটিকে গোয়ায় না থামানো হয়। মুখ্যমন্ত্রী প্রমোদ সাওয়ান্তের কথায়, ‘‌রাজ্যে এখন ১৮ জন করোনা আক্রান্ত রয়েছেন। ভিন রাজ্য থেকে এসে গোয়ায় প্রবেশ করার আগেই এই ১৮ জন সংক্রমিতকে শনাক্ত করা হয়। তবে দিল্লি থেকে এই ট্রেনে আসা ব্যক্তিরা রাজ্যে প্রবেশ করলে রাজ্যে বাড়তে পারে সংক্রমণের মাত্রা। তাই মাদগাঁও স্টেশনে যাতে এই ট্রেন না দাঁড়ায় সেই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।’‌

তবে শুধুমাত্র ট্রেন নয়, সড়ক পথে আসা সমস্ত ট্রাকচালকদেরও রাজ্যে প্রবেশের আগে পরীক্ষা করার ব্যবস্থা করেছেন গোয়ার মুখ্যমন্ত্রী। পরীক্ষার পরই তাদের রাজ্যে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হয়। গোয়ায় এখনও পর্যন্ত কোনও গোষ্ঠী সংক্রমণ হয়নি বলেই জানা গেছে।

Show More

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: