Big Story

সিএএ নিয়ে জাফরবাদে চলছে বিক্ষোভ-আন্দোলন, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ছুড়ল কাঁদানে গ্যাস।

চারিদিকে কেবলই বিক্ষোভ, বন্ধ একাধিক রাস্তাঘাট, নাকাল নিত্য যাত্রীরা।

@ দেবশ্রী : প্রথমে শাহিনবাগ, আর এবারে জাফরাবাদ। আর এই জাফরাবাদের আন্দোলনের জেরে যানজটে জেরবার দিল্লিবাসী। শনিবার রাত থেকে দিল্লির জাফরাবাদ, চাঁদবাদ ও মউজপুরে বিক্ষোভে বসেছেন CAA’র বিরোধীরা। এরপরেই রবিবার মউজপুরে CAA বিরোধী ও সমর্থকদের মধ্যে লেগে যায় সংঘর্ষ। এই ঘটনায়, জখম হন, ছয় পুলিশ কর্মী সহ মোট ১৫ জন। আর আজ সোমবারও সেই সংঘর্ষ অব্যাহত রয়েছে।

এদিকে এই আন্দোলনের জেরে উত্তর-পূর্ব দিল্লিতে রবিবার প্রায় আট ঘণ্টা যানজটের মুখে পড়েছিলেন দিল্লিবাসী। আজ সপ্তাহের শুরুতে, সোমবারও একই পরিস্থিতির শিকার হন দিল্লির সাধারণ মানুষ। বন্ধ রয়েছে একাধিক রাস্তা। এমনকী বেশ কয়েকটি মেট্রো স্টেশনের প্রবেশ পথও বন্ধ করে রাখা রয়েছে। ফলে ব্যাপক হ্য়রানির শিকার হন নিত্যযাত্রীরা। পুলিশ রাস্তা খালি করার চেষ্টা চালালেও বিশেষ লাভ হয়নি, পরিস্থিতি রয়েছে একই।

এদিকে সোমবার মউজপুরে CAA সমর্থক ও বিরোধীদের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। ফের এক গোষ্ঠি অপর গোষ্ঠিকে লক্ষ্য করে ছুঁড়তে থাকে পাথর। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার জন্য এদিনও কাঁদানে গ্যাস ছোড়ে। সংঘর্ষের জেরে বাবরপুর ও জাফরাবাদ স্টেশনে মেট্রো দাঁড়চ্ছে না বলে খবর। এদিকে আলিগড়েও CAA বিরোধী আন্দোলন ঘিরে পরিস্থিতি হয়ে রয়েছে উত্তপ্ত।

সূত্রের খবর, রবিবার বিকেলের উত্তেজনার মধ্যে গুলি চালায় এক দুষ্কৃতী। আর তাতে জখম হন এক আন্দোলনকারী। এদিকে অভিযোগ ওঠে যে, পুলিশকে লক্ষ্য করে ছোঁড়া হয় পাথর। এই মুহূর্তে ওই এলাকায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ২৪ ঘণ্টার জন্য বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে ইন্টারনেট।

দিল্লির মউজপুরের কাছে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন বিরোধী একটি মিছিল আটকে দেয় পুলিশ। তারপর আন্দোলনকারীদের সাথে বচসা বেঁধে যায় পুলিশের। এদিকে রাস্তা ফাঁকা করতে হাজির হয় বিজেপি অনুগামীরা। তাঁদের সঙ্গে আন্দোলনকারীদের বচসা বাঁধে। দুপক্ষের মধ্যে ইট ছোঁড়াছুড়ি শুরু হয়। সেই পরিস্থিতি সামাল দিতে সেখানে কাঁদানে গ্যাস ছোঁড়ে পুলিশ। উত্তেজনার জেরে বন্ধ হয়ে যায় সকল দোকানপাট। এই মুহূর্তে উত্তপ্ত দিল্লি।

Show More

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: