Big Story

সুনীতা সিং গৌড় BJP ও তাপস পাল TMC : দুজনেই চেয়েছেন মহিলাদের ধর্ষন করাতে ছেলেদের দিয়ে : পার্থক্য একদল মুসলিম অন্য দল সিপিআইএম

"হিন্দু ভাইয়েদের ১০ জন করে দল তৈরি করে মুসলিম মহিলাদের ধর্ষণ করা উচিত" : বিজেপি মহিলা মোর্চার নেত্রী সুনীতা সিং গৌড়

নিন্মমানের নেতানেত্রী দিয়ে দেশ চালাবেন কি ভাবে ? প্রশ্নও দেশের জনতার , সোশ্যাল মিডিয়া তে সমালোচনার ঝড়। আগামী রবিবার প্রধান মন্ত্রীর মন কি বাতে অনুষ্ঠানে ঝড় উঠতে পারে।

নিন্ম মন ও নিন্ম মানের পরিচয় দিলেন বিজেপি মহিলা মোর্চার নেত্রী, ফেইসবুক এ লিখলেন ‘মুসলিমদের জন্য একটাই সমাধান রয়েছে। হিন্দু ভাইয়েদের ১০ জন করে দল তৈরি করে মুসলিম মা ও বোনেদের প্রকাশ্য রাস্তায় গণধর্ষণ করা উচিত।’ উত্তরপ্রদেশের মহিলা কমিশনে জানানো হয়েছে তবুও নির্বিকার যোগী আদিত্যনাথ প্রশাসন , সারা দেশে নিন্দার ঝড়। কেন্দ্রিয় মন্ত্রী মুক্তার নাকভি কথা বলতে চাননি সংবাদ মাধ্যমের সাথে।

ফেসবুক পোস্টে এমনই নিদান দিয়েছেন বিজেপির মহিলা মোর্চার এক নেত্রী।হিন্দু পুরুষদের উচিত মুসলিম মহিলাদের গণধর্ষণ করা।এই মন্তব্যের পর তাঁকে দলীয় পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে।।ফেসবুক পোস্টে এমনই নিদান দিয়েছেন বিজেপির মহিলা মোর্চার এক নেত্রী। এই মন্তব্যের পর তাঁকে দলীয় পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে।

যোগী আদিত্যনাথের রাজ্যের মহিলা কমিশন কিন্তু নির্বিকার , ওপিনিয়ন টাইমস এর পক্ষ থেকে বিমলা ব্যাথাম চেয়ারপার্শন এর সাথে কথা বলের চেষ্টা করলেও তিনি কথা বলেন নি। তার অফিস বলেন এই বিষয়ে কিছু বলা যাবে না। চেয়ারপারসন খুবই ব্যস্ত মিটিং এ আছেন। অন্যান্য মেম্বাররা মুখ খোলেন নি। এই বিষয়ে উত্তরপ্রদেশ বিজেপি রাজ্য সভাপতিও কোন সাংবাদিক সম্মেলন করেন নি। তবে বিজেপি মহিলা মোর্চার নেত্রী সুনীতা সিং গৌড় কে সাময়িক ভাবে দলের কাজে যুক্ত না রাখার পরামর্শই দিয়েছেন। বিজেপি মহিলা মোর্চার নেত্রী সুনীতা সিং গৌড় কে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে ওনার ফোন বন্ধ ছিল।

ফেসবুকে এই পোস্টটি করার পরই তা ভাইরাল হয়ে যায়। নেত্রীর তুমুল সমালোচনায় মুখর হয় নেটিজেন। প্রবল চাপের মুখে তাঁকে দলীয় পদ থেকে সরিয়ে দেয় বিজেপি। বিজেপি মহিলা মোর্চার জাতীয় সভানেত্রী বিজয় রাহাতকর গৌড়ের টুইটের জবাবে বলেছেন, এ ধরনের মন্তব্য কোনওভাবেই সহ্য করা হবে না। তবে এই বিষয়টি পোস্ট করে সারা দেশ জুড়ে সাধারণ মানুষ থেকে সংবাদ মাধ্যম সবাই নিন্দা করেছে।

ওপর দিকে এই ঘটনার একই ছায়া দেখলো দেশ , তাপস পাল তৎকালীন এমপি পশ্চিমবঙ্গে নদীয়া জেলায় ২০১৪ সালে সিপিআইএমের কর্মী নেতাদের বাড়ীর মহিলাদের উদ্দেশে প্রকাশ্যে বলেন ” ঘরে ছেলে ঢুকিয়ে রেফ করে দেব ” এর বিচার এখনও চলছে, সিআইডি তদন্ত করলেও সাজা হয় নি। সেই সময় সমস্ত রাজনৈতিক দল পথে নেমে বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ করেছিলেন , তার মধ্যে বিজেপি মহিলা সেলও কিন্তু নিন্দা করেছিল। কিন্তু সেই নিন্দা কালের প্রবাহে বিজেপি ঘরে অস্বস্তি তৈরী করল।

Show More

OpinionTimes

Bangla news online portal.

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: