Health

সুপ্ত লড়াইয়ে এগিয়ে গেলো অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়

প্রাণীদেহে করোনা প্রতিষেধক পরীক্ষার প্রথম পর্যায়ের ফল মিলেছে

পল্লবী : করোনা প্রতিষেধক আবিষ্কারে মরিয়া বিশ্ব। চলছে সুপ্ত এক প্রতিযোগিতা। এসবের মধ্য থেকেও আবিষ্কারের পথে এক পদক্ষেপ এগিয়ে গেলো অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানীরা। মানব শরীরে এই প্রতিষেধকের পরীক্ষা শুরু হয়েছে। এর মধ্যে ছ’টি বাঁদরকে করোনাভাইরাসে সংক্রামিত করা হয়েছিল। প্রাথমিকভাবে দেখা গিয়েছে, বাঁদরের ফুসফুসের ক্ষতি আটকাতে সক্ষম হয়েছে এই প্রতিষেধক। কোনও রকম পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া ছাড়াই।

প্রাণীদেহে এই পরীক্ষার প্রথম পর্যায়ের ফল মিলেছে। আর তাতেই আশার আলো দেখছেন তাঁরা। এ প্রসঙ্গে লন্ডন স্কুল অব হাইজিন অ্যান্ড ট্রপিক্যাল মেডিসিনের অধ্যাপক স্টিফেন ইভান্স বলেন, ‘আমার কাছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ পর্যবেক্ষণ হল, করোনার গুরুতর সংক্রমণ সত্ত্বেও বাঁদরগুলি নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হয়নি। পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার কোনও প্রমাণও মেলেনি। সাধারণত প্রতিষেধক তৈরির ক্ষেত্রে বড় আশঙ্কার জায়গা হল পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া সংক্রান্ত অসুখ।’ লন্ডনের কিংস কলেজের অধ্যাপক পেনি ওয়ার্ড বলেন, ‘আশার কথা হল, প্রতিষেধক প্রয়োগের পর বাঁদরগুলির ফুসফুসে সমস্যা আর বাড়েনি। প্রতিষেধক প্রয়োগের ফলে তাদের নিউমোনিয়া ধরা পড়েনি।’

এখনও পর্যন্ত সারাবিশ্বে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৪৭,২০,১৯৬। এবং মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩,১৩,২২০। সুস্থ হয়ে উঠছেন ১৮,১১,৬৭৫ জন। একটা প্রতিষেধক বাঁচাতে পারে গোটা বিশ্বকে। ভারতে ইতিমধ্যেই কাজে এসেছে প্লাজমা থেরাপি, সাথে রয়েছে কিছু কীট। কিন্তু সুরাহা আর হচ্ছে কোই ! আগামীকাল কি হবে জানা নেই কারোর। তবে সচেতন থাকতে হবে সকলকে। মানব সম্প্রদায়ের সাথে এই অদৃশ্য শক্তির লড়াইয়ে জয় হবেই হবে।

Show More

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: