Women

সুরাহা হচ্ছে না কোনোমতেই, এনসিআরবি-র রিপোর্ট অনুযায়ী, ধর্ষণের মামলা সবথেকে বেশি দায়ের মধ্যপ্রদেশে।

বাড়ছে অপরাধের প্রবণতা, ধর্ষণের সংখ্যা কমার বদলে তা ক্রমশই বেড়ে চলেছে। থামছে না এই নৃশংস অপরাধ !

@ দেবশ্রী : যতই দেশ উন্নতির পথে এগোচ্ছে বলি না কেন আমরা, দেশে অপরাধের পরিমান কিন্তু একটুও কমছে না। বারবার প্রশ্ন ওঠে মেয়েদের সুরক্ষার কথা। তবে কিছুতেই তারা সুরক্ষিত নয়। দিন দিন যেন দেশে ধর্ষণের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। অথচ এই অপরাধের, বিচার ব্যবস্থার দিক থেকে তেমন কোনো করা শাস্তির ব্যবস্থা হয়ে উঠছে না। আজকের এই ডিজিটাল যুগে, ধর্ষণের বিচারের জন্যে অপেক্ষা করে থাকতে হয় বছরের পর বছর। আর অনেক ঘটনাতো আইনতভাবে এফাআইয়ার দায়ের করা হয় না। মাত্র অল্প সংখ্যক কেস দায়ের করা হয় আর সেগুলোও বিচার পেতে বছরের পর বছর কেটে যায়, তাও লড়াই চলতে থাকে, শেষ হয় না। জানা গেছে, ২০১৬ থেকে টানা তিন বছর ২০১৮ পর্যন্ত ধর্ষণের জন্য শীর্ষে রয়েছে মধ্যপ্রদেশ। এই রাজ্যে গত তিনবছরে সবচেয়ে বেশি ধর্ষণের ঘটনা নথিবদ্ধ হয়েছে।

২০১৮ সালের রিপোর্ট অনুযায়ী, ন্যাশনাল ক্রাইম রেকর্ড ব্যুরো (‌এনসিআরবি)‌ বুধবার এক রিপোর্ট প্রকাশ করেছে। আর সেই রিপোর্ট অনুযায়ী জানা গিয়েছে, ২০১৮ সালে দেশের মোট ৩৩,৩৫৬টি ধর্ষণের মামলার মধ্যে মধ্যপ্রদেশে ১৬ শতাংশের বেশি মামলা নথিভুক্ত হয়েছে।এই বছরেই ৫,৪৩৩টি ধর্ষণের মধ্যে ৬ বছরের নীচে শিশুদের ৫৪টি ধর্ষণের মামলা নথিভুক্ত হয়েছে। ২০১৬ এবং ২০১৭ সালেও মধ্যপ্রদেশ ধর্ষণ মামলায় শীর্ষে ছিল। তবে ২০১৮ সালের তুলনায় ২০১৭ সালে ধর্ষণের মামলা কম নথিভুক্ত হয়েছে।

এনসিআরবি জানিয়েছে, সরকারি সংস্থাগুলি ধর্ষণের তথ্য সংগ্রহ করতে এবং ক্রাইম ডাটা বিশ্লেষণ করতেও ব্যর্থ হয়েছে। তা সত্ত্বেও ২০১৬ সালের তুলনায় ২০১৮ সালে ধর্ষণের সংখ্যা অনেকটাই বেশি। ২০১৬ সালে মধ্যপ্রদেশে ৪,৮৮২টি ধর্ষণ নথিভুক্ত হয়েছে। এর পাশাপাশি ২০১৮ সালে ১৮ বছরের নীচে ধর্ষণ হয়েছে এমন মামলার সংখ্যা ২,৮৪১টি। আর এর মধ্যে ছয় বছরের নীচে শিশুদের ধর্ষণ করা হয়েছে তার সংখ্যা ৫৪টি এবং ৬ থেকে ১২ বছরের নীচে ধর্ষিতার সংখ্যা ১৪২জন। এনসিআরবি থেকে জানা যায় যে, ২০১৮ সালে ১,১৪৩টি ধর্ষণের মামলায় ধর্ষিতার বয়স ১২ থেকে ১৬ বছর এবং ১৬ থেকে ১৮ বছরের আক্রান্তের সংখ্যা ১,৫০২টি। অপরদিকে, ২০১৬ সালে ১৮ বছরের নীচে আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ২,৪৭৯জন এবং ৩৯ জন ছিল ছ’‌বছরের নীচে শিশু।

২০১৭ সালে এনসিআরবি জানিয়েছে, ১৮ বছর বা তার নীচে ধর্ষিতার সংখ্যা ছিল ৩,০৮২জন এবং ৫০ জন ছিল ছ’‌বছর বা তার নীচে। এনসিআরবি এর এই তালিকাতে মধ্যপ্রদেশের পরই রয়েছে রাজস্থান (‌৪,৩৩৫)‌, উত্তরপ্রদেশ (‌৩,৯৪৬)‌, মহারাষ্ট্র (‌২,১৪২)‌ এবং ছত্তিশগড় (‌২,০৯১)‌। মধ্যপ্রদেশ প্রসিকিউশন বিভাগের দেওয়া তথ্য অনুসারে, রাজ্যের আদালতগুলি ২০১৮ সালে কিশোরীদের বিরুদ্ধে ধর্ষণের ১৮ টি মামলায় দোষীদের মৃত্যদণ্ড দিয়েছে।

সময় পেরিয়ে যাচ্ছে কিন্তু তাও সেই ভাবে নেওয়া হয় না কোনো পদক্ষেপ। আর পদক্ষেপ নেওয়া হলেও অপরাধীদের মধ্যে তার কোনো প্রভাব পড়ছে না। উল্টে তাদের মধ্যে অপরাধ করার প্রবণতা দিন দিন বেড়েই চলেছে। আর এগুলোতো গেল সেই সময় সংখ্যা যেগুলো মামলা দায়ের করা হয়েছে, অনেক সংখ্যক ধর্ষণ শুধু মুখেই অভিযোগ হয়, লিখিত হয় খুব কম সংখ্যক। যতই হ্যাং দ্যা রেপিষ্ট বলে চেঁচাই না কেন আমরা তাও দিন দিন বাড়ছে ধর্ষণের সংখ্যা। বাড়ছে অপরাধের প্রবৃত্তি।

Show More

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: