West Bengal

সোশ্যাল মিডিয়ায় নগ্নতার শিকার নাবালিকা

লকডাউনে ঘর বন্দি যুবক যুবতীরা কেউ ব্যাস্ত সারমেয়দের খাবার যোগান দিতে আর কেউ ব্যাস্ত ব্ল্যাকমেল-এ

পল্লবী : চলতি লকডাউনে ঘর বন্দি যুবক যুবতীরা। তাদের ফাঁকা সময় কাটাতে কেউ ব্যাস্ত মানুষের পাশে দাঁড়াতে, কেউ ব্যাস্ত সারমেয়দের খাবার যোগান দিতে আর কেউ কেউ ব্যাস্ত হয়ে পড়েছে সোশ্যাল মিডিয়াকে মাধ্যম করে নোংরা ছবির বিনিময়ে জনপ্রিয়তা অর্জনে। আর এবার উঠে আসলো তেমন ই এক ঘটনা।

নাবালিকাকে গণধর্ষণ ও তাঁর স্বীকারোক্তির একটি স্ক্রিনশট কয়েকদিন ধরেই ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়ায়। সেই ঘটনার সূত্র ধরেই প্রকাশ্যে এল কলকাতার একটি চক্রের নাম। একাধিক যৌন কেলেঙ্কারির ঘটনায় জড়িত ওই চক্রে রয়েছে এক বিজেপি নেতার ছেলে ও তাঁর বন্ধুরা। দিল্লির ১৫ বছরের নাবালিকাকে গণধর্ষণ প্রসঙ্গে মুখ খুলে কলকাতার এক মহিলা প্রথম প্রকাশ্যে আনেন যে, এমনই একটি চক্র বহু বছর ধরে গোপনে কাজ চালাচ্ছে কলকাতায়। চক্রে জড়িত সৌরদ্বীপ বসাক নামে এক যুবক ২০১৬ সালে প্রথম একটি গুগুল ড্রাইভ তৈরি করেন। সেটির অ্যাক্সেস দেওয়া হয় দলের বাকি সদস্যদেরও।

আদতে এদের দুর্নীতি কি ছিল সে বিষয়ে জানা গেছে , বেশ কিছুদিন কথা বলার পর মহিলাদের প্রেমের প্রস্তাব দিত তারা। সম্মতি মিলতেই প্রেমিকার কাছ থেকে ছলে-বলে-কৌশলে আদায় করে নিতো তাদের নগ্ন ছবি। তা মিলতেই সঙ্গে সঙ্গে আপলোড করা হত ড্রাইভে। ড্রাইভের অ্যাক্সেস থাকা সকলেই তা দেখতেন। আর কোনও ক্ষেত্রে কেউ যদি প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যখ্যান করতেন সেক্ষেত্রে প্রযুক্তির মাধ্যমে অন্যের নগ্ন শরীরে বসানো হত তাঁর মুখ। তবে দু’ক্ষেত্রেই পরবর্তীতে এই ছবি দিয়ে হুমকি দেওয়া হত মহিলাদের।

সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়া অভিযুক্তদের তালিকা অনুযায়ী রাজ্য বিজেপির শীর্ষ নেতার ছেলে যশপ্রকাশ মজুমদার, ইমনকল্যাণ ঘোষ, শ্রেয়ন চট্টোপাধ্যায়, দিব্যজ্যোতি বসাক, আয়ুশ বন্দ্যোপাধ্যায়-সহ একাধিক যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন ও বর্তমান পড়ুয়া জড়িত এই ঘটনায়। এ বিষয়ে অভিযুক্ত আয়ুশ বন্দ্যোপাধ্যায়কে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে গোটা বিষয়ে তাঁর কোনও সম্পর্ক নেই, এমনকী এই ড্রাইভ সম্পর্কে কিছু জানে না বলেই দাবি করে সে। তবে সোশ্যাল মিডিয়ায় যে পোস্ট ছড়িয়ে পড়েছে, সেটিতে থাকা তথ্যের বাইরে এখনও অতিরিক্ত কোনও তথ্য দিতে পারেননি কেউ। প্রথম অভিযোগকারীর সঙ্গেও যোগাযোগ করাও সম্ভব হয়য়নি। তবে এই চক্রের বিষয়টি প্রকাশ্যে আসার পরই নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টটি নিষ্ক্রিয় করেছে সৌরদ্বীপ। যোগাযোগ করা যায়নি যশপ্রকাশের সঙ্গেও।

বর্তমানে এই সব চক্রান্তের স্বীকার বহু নাবালিকা। উঠতি বয়সে ভালো-মন্দ বিচার করার ক্ষমতা না থাকায় খুব সহজেই তারা এইসব চক্রান্তে পা দিয়ে জীবনের শুরুতেই ভুল কাজ গুলি করে বসে আর এর খেসারত সারাজীবন ধরে চোকাতে হয়। তাই আজকের আধুনিক মাধম্যে সর্বদা সচেতন থাকা অত্যন্ত প্রয়োজন। সকলে সচেতন থাকো অন্যায়ের বিরুধ্যে সরব হও। নইলে সমাজে হাজার বার জন্ম নেবে পবন,মুখেশ এর মতো মানব রুপী পশু।

Show More

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: