Nation

হোয়াইট হাউসের ফলোইং লিস্টে নামের সংখ্যা কমে ১৩

মোদি জি-র ব্যাক্তিগত একাউন্ট সহ মোট ৫ টি ভারতীয় টুইটার একাউন্ট আনফলো করলো হোয়াইট হাউস

পল্লবী : প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে টুইটারে আনফলো করে দিল মার্কিন প্রসিডেন্টের সরকারি বাসভবন হোয়াইট হাউস। মোদির ব্যক্তিগত টুইটার হ্যান্ডেলের পাশাপাশি ভারতের প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর এবং রাষ্ট্রপতির দপ্তর-সহ ভারতের সঙ্গে সম্পর্কিত মোট ৫টি টুইটার অ্যাকাউন্ট আনফলো করেছে মার্কিন প্রেসিডেন্টের সরকারি বাসভবন। এর থেকে সম্পর্কের যে অবনতি ঘটেছে তা স্পষ্ট হলো।

ভারত-আমেরিকা মোদী-ট্রাম্পকে যে বন্ধুত্বের সম্পর্ক তা নিয়ে রাজনৈতিক মহলে সমালোচনার শেষ ছিলোনা। আচ্ছা, অন্যান্য রাজনৈতিক নেতাদের নজর পড়লো আঁকি ! যার জেরে আনফলো-এর লিস্ট এ গেলো মোদির ব্যাক্তিগত একাউন্ট সহ আরো ৪ টি ভারতীয় এক একাউন্ট। হঠাৎই এক ভালো বন্ধুত্বের এরূপ ছন্দ পতন কিসের জন্য ? এর কারণ কি ? রাজনৈতিক চর্চিত বহু মানুষের মনে জাগছে প্রশ্ন।

যে বিষয়টি আরো ভাবাচ্ছে তা হলো সপ্তাহ তিনেক আগেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ-সহ এই পাঁচটি টুইটার হ্যান্ডেল ফলো করা শুরু করে হোয়াইট হাউস। তখন হোয়াইট হাউসের সরকারি টুইটার হ্যান্ডেলের ফলোয়ার সংখ্যা ছিল ২১.৫ মিলিয়ন। এবং হোয়াইট হাউস ফলো করত ১৯ জনকে। সেই ১৯ জনের মধ্যে ৬ জনকে আনফলো করল মার্কিন প্রেসিডেন্টের বাসভবন। যে হ্যান্ডেলগুলি আনফলো করা হয়েছে তাঁর মধ্যে ওয়াশিংটনে ভারতের দূতাবাস এবং ভারতে আমেরিকার দূতাবাসও রয়েছে। আপাতত হোয়াইট হাউসের ফলোয়ার সংখ্যা ২২ মিলিয়ন এবং মার্কিন প্রেসিডেন্টের সরকারি বাসভবন ফলো করছে ১৩ জনকে।

রসিকতাতে পাশে ফেলে আদতে দেখতে গেলে হটাৎ এই আনফলো করার নিশ্চই কোনো গুরুতর কারণ তো আছে বটেই। তবে কি সেই কারণ, হাইড্রোক্লোরোকুইন তা নিয়ে কিছুদিন আগে এক বাকযুদ্ধ বেঁধে গিয়েছিলো নাকি আন্তর্জার্তিক ধর্মীয় স্বাধীনতার যে রিপোর্ট প্রকাশিত হয় যেখানে আমেরিকার অভিযোগ বেমালুম খারিজ করেছিল ভারত তা নিয়ে ?এই প্রশ্নের উত্তরে আশায় রইলো সকলে।

Show More

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: